শনিবার, ৩১ অক্টোবার ২০২০   Saturday, 31 October 2020.  



 অর্থনীতি


আমাদের প্রতিদিন

 Sep-26-2020 06:28:34 PM


 

No image


নিজস্ব প্রতিবেদক:

রংপুর নগরীতে শাক-সবজি, মাছ-মাংসের চাহিদা যেমন বাড়ছে। তেমনি বাড়ছে দাম। গত কয়েকদিন ধরে বৃষ্টির অজুহাতে নগরীর পাইকারি ও খুচরা বাজারগুলোয় এসব পণ্যের দাম আরো বেড়েছে। চাল, ডাল, তেল ও পেঁয়াজের দাম তো আগে থেকেই চড়া।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় প্রতিটি শাক-সবজি ১০ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত বাড়তি দামে বিক্রি হয়েছে। মাছ, ডিম, গরুর মাংসের দামও বেশি ছিল। নগরীর সিটি বাজার, মর্ডাণ মোড়, লালবাগ, কামাল কাছনা, চকবাজার, ধাপ সিটি বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া যায়।

নগরীর ধাপ বাজারে দেশি পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৯০ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৭০  টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

পাইকারি বিক্রেতারা জানান, পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে অন্তত পাঁচ টাকা কমেছে।

সিটি বাজার গিয়ে দেখা গেছে,  বেগুন ৭০ থেকে ৮০ টাকা, ঝিঙা ৫০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, পটোল ৪০ টাকা, টমেটো ১০০ টাকা ও গাজর ৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

সবজি বিক্রেতাদের দাবি, সবজির দাম টাটকা ও বাসির কারণে দামে পার্থক্য হয়।  তাই দাম একটু বেশি থাকে। এ ছাড়া বৃষ্টির কারণে সবজির দাম একটু বেশি নেয়া হচ্ছে।

এদিকে, আজ শনিবার নগরীতে গরুর মাংস ৫২০ থেকে ৫৫০ টাকায় বিক্রি হয় । আগের দিন এসব বাজারে ৫০০ টাকায় মাংস পাওয়া গেছে। এসব বাজারে খাসি ৯০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। ব্রয়লার মুরগি ১২০ টাকা, পাকিস্থানি কক ২২০ টাকা, সাদা কক ২০০ ও দেশি মুরগি ৪৫০ টাকা কজি দরে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে মুরগির দাম গেল সপ্তাহের চেয়ে কিছুটা কমেছে। ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হয় প্রতি ডজন ১১৫ টাকা দরে, গত সপ্তাহে ছিল ১১০ টাকা।

নগরীর সিটি বাজারে কথা হয় তামপাট এলাকার ক্রেতা আশরাফুল আলম, চেকপোস্ট এলাকার শহিদুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন জানান, প্রায় সব পণ্যেরই দাম বেড়েছে। তবে বেশী বেড়েছে শাক-সবজি, মাংসের। মনিটিং না থাকায় ব্যবসায়ীরা নিজের ইচ্ছামত নানা অজুহাতে দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন।



আজকের রংপুর


No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image






 

 

 

 

 

 
সম্পাদক ও প্রকাশক
মাহবুব রহমান
ইমেইল: mahabubt2003@yahoo.com