শুক্রবার, ৭ আগষ্ট ২০২০   Friday, 7 August 2020.  



 রাজনীতি


আমাদের প্রতিদিন

 Jun-16-2020 06:41:59 PM


 

No image


ঢাকা অফিস:

দীর্ঘ ৪৫ বছর পর ফের প্রতিবেশী দুই দেশ চীন ও ভারতের মধ্যে সীমান্ত সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। ওই সংঘর্ষে তিন ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন চীনা সেনাও নিহত হয়েছে বলে দাবি নয়াদিল্লির। যদিও এ বিষয়ে কিছু জানায়নি চীন।
গতকাল সোমবার রাতে পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় দুই পক্ষের সেনাদের মধ্যে ওই সংঘর্ষ হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।
এর আগে ১৯৭৫ সালে শেষবার চীন- ভারতীয় সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছিল। ওই সংঘর্ষে অরুনাচল প্রদেশে চীনা সেনাদের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিল এক ভারতীয় সেনা।
এ ঘটনার দীর্ঘ ৪৫ বছর সোমবার রাতে আবার দু দেশের সেনাদের মধ্যে সংঘাতের ঘটনা ঘটল। এতে চীনের হাতে এক কম্যান্ডিং অফিসারসহ তিন ভারতীয় জওয়ান নিহত হয়েছেন।
ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে মঙ্গলবার দুপুরে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘গলওয়ান উপত্যকায় উত্তেজনা প্রশমন প্রক্রিয়ার মধ্যেই গতকাল (সোমবার) রাতে সংঘর্ষ এবং মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় ভারতীয় সেনার এক অফিসার এবং দুই জওয়ান নিহত হয়েছেন। দু'পক্ষের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বৈঠক করছেন।’
ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, গালওয়ান উপত্যকা থেকে সেনা সরোনার সময় আচমকা ঝামেলা বাদে এবং এ নিয়ে সীমান্ত সংঘর্ষ শুরু হয়। এসময় চীনা সেনাদের আঘাতে নিহত হয় ওই তিন ভারতীয় সেনা।
তবে এই সংঘর্ষে পুরো দায় ভারতের ওপর চাপিয়েছে চীন। বেইজিংয়ে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেন, একবার বা দুইবার নয়, গত সোমবার (১৫ জুন) রাতে ভারতীয় সেনারা বহুবার তাদের সীমান্তে অনুপ্রবেশ করেছে। এসময় চীনা বাহিনী তাদের আটকাতে গেলেই সংঘর্ষ শুরু হয়।
তবে ওই বিবৃতিতে কোনও ভারতীয় সেনার নিহত হওয়ার উল্লেখ নেই। নিজেদের দিককার ক্ষয়ক্ষতি নিয়েও কিছু বলেনি বেইজিং। যদিও ওই সংঘর্ষে চীনা সেনাও নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারত।
প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সোমবার রাতে সীমান্তে দু পক্ষের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতি ও পাথর ছোড়াছুড়ি হয়। পরে তারা পরস্পরকে রড নিয়ে হামলা চালায়।
এ ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যে জরুরি বৈঠক করেছেন ভারতের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তিন বাহিনীর প্রধান ও সিডিএস।
প্রসঙ্গত, গত মাসের গোড়ার দিকে পূর্ব লাদাখের প্যাংগং লেকে দু দেশের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতি ও পাথর ছোড়ার ঘটনা ঘটেছিল। এতে দু পক্ষের কমপক্ষে ১৩ সেনা আহত হওয়ার খবর দিয়েছিল আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো। তখন থেকেই পূর্ব লাদাখের চার স্থানে একেবারে মুখোমুখি অবস্থান করছে চীন ও ভারতের সেনারা।
এরপর পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার লক্ষ্যে দু দেশের মধ্যে দফায় দফায় বৈঠকও হয়েছে একাধিকবার। কিন্তু এসব বৈঠক যে কোনও কাজে আসেনি সোমাবারের ঘটনা তার প্রমাণ। শেষ অবদি এই সংঘাত কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় সেটাই দেখার বিষয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চীন-ভারত যুদ্ধের সম্ভবনাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস/এনডিটিভি



আজকের রংপুর


No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image






 

 

 

 

 

 
সম্পাদক ও প্রকাশক
মাহবুব রহমান
ইমেইল: mahabubt2003@yahoo.com