রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বার ২০২১   Sunday, 19 September 2021.  



 বাংলাদেশ


আমাদের প্রতিদিন

 Sep-14-2021 05:28:48 PM


 

No image


কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি:

রংপুরের কাউনিয়ায় তিস্তা নদীতে ভাসছিল ডলফিন। সকালে জেলেরা তিস্তা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে ডলফিন মাছটি উদ্ধার করে। তবে উদ্ধার হওয়া প্রায় সাড়ে তিন মন ওজনের ডলফিন মাছটি ছিল মৃত।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের চর গনাই গ্রামে তিস্তা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে স্থানীয় জেলেরা এ মাছটির সন্ধান পান। তিস্তায় বিশাল আকৃতির মাছ উদ্ধারের খবর পেয়ে চর গনাই গ্রামে স্থানীয় উৎসুক মানুষজন মাছটি দেখতে ভিড় জমান।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, চরগনাই গ্রামের জেলে জহুরুল, করিমুদ্দিন ও দুলু প্রতিদিনর মতো মঙ্গলবার ভোরের দিকে নৌকায় তিস্তা নদীতে মাছ ধরতে যায়। তিন জেলে সকাল ৬ টার দিকে নদীর মাঝখানে একটি মাছ সাদৃশ্য বস্তু ভাসতে দেখে। এরপর তারা সেটির কাছে যান। এরপর তারা সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বিশাল আকৃতির মাছটি নদী থেকে নৌকায় উঠিয়ে তা কিনারায় নিয়ে আসে। খবর পেয়ে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুব উল আলম উদ্ধার হওয়ায় মাছটি তিমি বলে শানাক্ত করেন। তিনি বলেন, মাছটির দৈর্ঘ্য ৯ ফুট এবং প্রস্থ ৩ ফুট। ওজন প্রায় ৪ মণ। উজানের ঢলে ভারত থেকে ভাসতে ভাসতে চলে আসতে পারে। তবে এসব মাছ লোনা পানির। মিঠা পানিতে চলে এসেছে। কিন্তু মিঠা পানির খাবার খেয়ে ফুড পয়জনিং হয়ে মাছটি মারা যেতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা যাচ্ছে।

তবে নদীর কিনারায় মাছটি দেখতে আসা বিশ্বনাথ গ্রামের আহম্মদ আলী বলেন, এটি তিমি বা ডলফিন মাছ নয়। এটি একটি শিশু মাছ। গ্রাম্যভাষায় ঠাগাস মাছ বলা হতো। অনেক দিন আগে তিস্তায় তিন থেকে চার ফুট লম্বা  শিশু মাছ দেখা যেত। এখন আর দেখা যায় না।

চরগনাই গ্রামের বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম ও আজিজার রহমান বলেন, তারা কখনো স্বচোখে ডলফিন মাছ দেখেননি। তিস্তা নদীতে ডলফিন মাছ ধরার খবর পেয়ে ছুটে এসেছেন। তবে মাছটি মৃত না হলে আরও ভালো লাগতো বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

আজমখাঁ গ্রামের রোকেয়া বেগম (৬৫) বলেন, ছোট বেলায় এ রকম বাগর মাছ দেখেছিলাম। তবে সেগুলো ছিল ছোট। এটাতো অনেক বড় একটা মাছ। মাছটা মরা না হলেও জীবিত হলে এলাকার সবাই ভাগ করে নিতে পারতো। তবে মৎস্য বিভাগ বলছে, এগুলো জলজপ্রানী এসব মাছ বাচ্চা দেয়, ডিম পারে না। আর এসব মাছ খাওয়া যায় না।

কাউনিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাসুদুর রহমান বলেন, যেহেতু মাছটি মৃত এবং গন্ধ ছড়াচ্ছে তাই পরিবেশ দূষণ যেন না হয় সেজন্য মাছটি মাটিতে পুঁতে ফেলা হবে।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফারজানা আকতার বলেন, তিনি অসুস্থ তাই ঘটনাস্থলে যেতে পারেন নাই। তবে ছবি দেখে তিস্তায় উদ্ধার হওয়া মাছটি ডলফিন হতে পারে বলে তিনি ধারনা করছেন। কিছুদিন আগেও কক্সবাজারে সমুদ্র এলাকায়ও এমন ধরনের ডলফিন মাছ ভেসে এসেছিল।



আজকের রংপুর


No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image






 

 

 

 

 

 
সম্পাদক ও প্রকাশক
মাহবুব রহমান
ইমেইল: mahabubt2003@yahoo.com