Sat,20 Jul 2019  



 বাংলাদেশ


আমাদের প্রতিদিন

 Jul,19,2019 07:54:43 PM


 
আমাদের প্রতিদিন | রংপুর | A well known rangpur based news paper | rangpur| dhaka| bangladesh

No image

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বিরলে জমি সংক্রান্ত বিরোধে আব্দুল বারী নামে একজনকে হত্যা মামলায় সহোদর জাহাঙ্গীর আলম এবং শরিফুল ইসলামকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত এছাড়াও ওই মামলায় অভিযুক্ত আরো জন নারীসহ ১৭ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায়ও প্রদান করা হয়েছে

গতকাল রোববার দুপুরে দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক আনোয়ারুল হক এক জনাকীর্ণ আদালতে এই রায় ঘোষণা করেন এছাড়াও প্রত্যেক আসামীকে সাজার পাশাপাশি ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে একই মামলার ১৯ জন আসামীকে মারামারি করে রক্তাক্ত জখম করার অপরাধে ৩২৫ ১৪৯ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে প্রত্যেককে বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড এবং হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও মাসের বিনাশ্রম কারা ভোগের রায় দেয়া হয়েছে

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত সহোদররা হলেন, বিরল উপজেলা রতনৌর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম এবং শরিফুল ইসলাম মামলার ১৭ জন যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তদের দুই ভাই রতনৌর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক মোহবুর রহমান, একই এলাকার চান মোহাম্মদের ছেলে মতিবুর রহমান ওরফে মতিউর রহমান মঙ্গলু, মতিবুর রহমান ওরফে মতিউর রহমান মঙ্গলুর দুই ছেলে জাফরুল হক রাসেল হক, মতিবুর রহমান ওরফে মতিউর রহমান মঙ্গলুর স্ত্রী নুর নেহার, আব্দুল মালেকের ছেলে গোলাম রব্বানী, আব্দুর রহমানের স্ত্রী সুরাতন নেছা, মৃত সমির উদ্দীনের ছেলে আব্দুর রহমান, মৃত কেরাম উদ্দীন সরকারের ছেলে আব্দুস সামাদ, মৃত মেনু মোহাম্মদের ছেলে নাজমুল হক, শরিফুল ইসলামের স্ত্রী আকলিমা খাতুন, নাজমুল হকের স্ত্রী মল্লিকা বেগম, হযরত আলীর ছেলে রোস্তম আলী, রোস্তম আলীর স্ত্রী তাজুন নেহার, ঝানঝু মোহাম্মদের ছেলে আনিছুর রহমান আনিছুর রহমানের স্ত্রী কুলসুমা খাতুন ১৯ আসামীর মধ্যে আব্দুর রহমান আকলিমা খাতুন পলাতক রয়েছেন

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০০৪ সালের ২৯ অক্টোবর সকালে দিনাজপুরে বিরল উপজেলার রতনৌর মৌজার ১৪ শতাংশ জমির মালিকানার মিস অগ্রক্রয়ের মামলা করে ডিক্রিপ্রাপ্ত হলে জমির দখল আদালত কর্তৃক পেয়াদা মাধ্যমে দখল নিতে যায় বিরল উপজেলার নোনাগ্রামের মাহাতাব উদ্দিন আহাম্মদের ছেলে আব্দুল কাফি, সাইদুর রহমান, ওহিদুর রহমান, আব্দুল বারী, ফরিদুল হক, বড় বোন মাহফুজা খাতুনসহ অন্যান্যরা সময় মামলার প্রতিপক্ষের বাধার মুখে দখল নিতে ব্যর্থ হয়ে আদালতের লোক ফেরত যায় এরপরই দখল নিতে যাওয়াদের সাথে প্রতিপক্ষের সংঘর্ষ বাধে, যাতে কয়েকজন আহত হয় আহতদের মধ্যে বিরল উপজেলার নোনাগ্রামের মাহাতাব উদ্দিনের ছেলে আব্দুল কাফী আব্দুল বারী এবং তাদের বোন মাহফুজা বেগমকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ঘটনার (একদিন পরে ৩০ অক্টোবর ২০০৪) পরদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাণ হারান আব্দুল বারী ভাই হত্যার ঘটনায় ৩১ অক্টোবর মৃতের ভাই এ্যাড. আব্দুল বাকী বাদী হয়ে বিরল থানায় ৩২৫, ৩০২ ১৪৯ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন দীর্ঘদিন মামলা কার্যক্রমে ১৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে আদালত উক্ত রায় প্রদান করেন

রায় ঘোষণার সময় বাদী আসামীপক্ষের লোকদের ভীড় ছিলো আদালতে 

মামলাটি সরকার পক্ষে পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি হাসনে ইমাম নয়ন এ্যাডঃ একরামুল আমিন আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন মাজহারুল ইসলাম সরকার, মোসলেম উদ্দিন সরকার স্টেট ডিফেন্স কৌশুলী খলিলুর রহমান









 

 

 

 

 

 
সম্পাদক ও প্রকাশক
মাহবুব রহমান
ইমেইল: mahabubt2003@yahoo.com