শুক্রবার, ২০ মে ২০২২   Friday, 20 May 2022.  



 লাইফস্টাইল


আমাদের প্রতিদিন

 Feb-29-2020 05:46:03 PM


 

No image


আমাদের ডেস্ক:

ঘুমের অভাব যেমন মানুষকে নানাবিধ শারীরিক ও মানসিক সমস্যায় ভোগায় তেমন অতিরিক্ত ঘুমও মহাক্ষতির কারণ হতে পারে। সুস্থ থাকতে দৈনিক ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমানো জরুরি। আর যারা দিনে ১০-১২ ঘণ্টা ঘুমিয়েই কাটিয়ে দিচ্ছেন তারা মোটেই সুস্বাস্থ্যের অধিকারী নন।

বিজ্ঞানের ভাষায় অতিরিক্ত ঘুমানোকে সাধারণত ঐুঢ়বৎংড়সহরধ ড়ৎ ঐুঢ়বৎংড়সহড়ষবহপব বলে। কেউ যদি ৯ ঘণ্টার বেশি ঘুমায় তবে তাকে অতিরিক্ত ঘুম বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

অনেকেই ছুটির দিন কিংবা অবসর পেলে দীর্ঘক্ষণ ঘুমাতে ভালোবাসেন। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অতিরিক্ত ঘুমালে মানসিক ও শারীরিক নানা সমস্যা দেখা দেয়। যেমন-

১. পর্যাপ্ত ঘুম শরীরে রক্ত সঞ্চালন ঠিক রাখে। তবে অতিরিক্ত ঘুমালে রক্ত জমাট বেঁধে শরীরের বিভিন্ন অংশে অক্সিজেন চলাচল বাঁধাগ্রস্ত হয়। ফলে হৃদরোগ, স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে।

২. অতিরিক্ত ঘুমালে ওজন বাড়ার আশঙ্কা বাড়ে। এতে মানসিক অবসাদও বেড়ে যায়।

৩. ওজন বাড়লে টাইপ টু ডায়াবেটিসেরও ঝুঁকি দেখা দেয়।

৪. অতিরিক্ত ঘুমালে অনেকসময় তীব্র মাথাব্যথা হয়।গবেষণায় দেখা গেছে, সাপ্তাহিক ছুটিতে যারা বেশি ঘুমান তারা ওই সময় মাথা ব্যথা সমস্যায় ভোগেন।

৫. অনেকক্ষণ ঘুমালে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথাও হয়। বিশেষ করে যাদের হাড়ের সমস্যা আছে তাদের ব্যথা বেড়ে যায়। এছাড়া পিঠ এবং কোমর ব্যথাও বাড়ে।

৬. অতিরিক্ত ঘুমালে শরীরে অলসতা তৈরি হয়। আর শারীরিক কার্যক্রমের অভাবে মানসিক অবসাদও দেখা দেয়। এছাড়া সারাদিন ঘুমিয়ে কাটালে শরীরে ভিটামিন ডি’য়েরও ঘাটতি দেখা দেয়।



আজকের রংপুর


No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image
No image






 

 

 

 

 

 
সম্পাদক ও প্রকাশক
মাহবুব রহমান
ইমেইল: mahabubt2003@yahoo.com