পীরগাছায় পুকুরে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগ করে দেড় লক্ষাধিক টাকার মাছ নির্ধনের অভিযোগ

আমাদের প্রতিদিন
2023-12-06 18:17:15

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি:

রংপুরের পীরগাছায় বিক্রি করা জমি নিয়ে দ্বন্দের জের ধরে পুকুরে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগ করে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার মাছ নির্ধনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বুধবার উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের তাজ তালুক গ্রামের আব্দুল মতির ব্যাপারী পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে পীরগাছা থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন মাছ চাষী আব্দুল মতিন ব্যাপারী। পুলিশ গতকাল বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের তাজ তালুক গ্রামের মৃত নছিম উদ্দিন ব্যাপারীর ছেলে স্থানীয় পাওটানা বাজারের খাদ্য ব্যবসায়ী আব্দুল মতির ব্যাপারী তার প্রতিবেশি মৃত আছের মাহমুদ ও তার ছেলে আতাউর রহমান গংদের নিকট থেকে ৩৪ শতাংশ জমি ক্রয় করে ভোগদখল করে আসছিলেন। সম্প্রতি ওই জমিতে পুকুর খনন ও মাছ চাষে বাধা দেন আতাউর রহমান ও তার লোকজন। জমিটি নিজেদের বলে তারা প্রভাব বিস্তার করেন। এ নিয়ে আব্দুল মতিন ব্যাপারী গত ১৩ আগস্ট জেলা রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই জমির উপর ১৪৪/১৪৫ ধারা মোতাবেক মামলার আবেদন করেন। সেই মতে পীরগাছা থানা পুলিশ গতকাল বুধবার ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য যাওয়ার কথা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিবাদী আতাউর রহমান, তার স্ত্রী ও ছেলেরা মিলে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে বাদি আব্দুল মতিন ব্যাপারীর পুকুরে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগ করেছেন বলে অভিযোগ করেন আব্দুল মতিন ব্যাপারী। গতকাল বুধবার সকালে ৬২ শতাংশ জমির পুকুরটিতে বিভিন্ন প্রজাতির মরা মাছ ভাসতে থাকে এবং প্রায় ২০ মন মাছ মারা যায়। এতে করে তার দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়।

সরেজমিনে গতকাল বুধবার সকালে পুকুর পাড়ে গিয়ে দেখা যায়, পুকুরে চার পাশে মরা মাছে গন্ধ ছড়াচ্ছে। কিছু যুবক সেই মাছগুলো তুলে পুকুর পাড়ে রাখছেন।

এসময় আব্দুল মতিন ব্যাপারী বলেন, আমার কাছে জমি বিক্রি করে আবার জমি দাবি করছে। তারা কোন কাগজপত্র দেখাতে পারে না। গায়ের জোরে সব করতে চায়। তাই আমি আদালতে অভিযোগ দিয়েছি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা আমার পুকুরে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগ করে সব মাছ মেরে ফেলেছে।

বিষয়টি জানতে বিবাদী আতাউর রহমানের বাড়িতে যাওয়া হলেও তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে পীরগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সামিউল ইসলাম বলেন, ১৪৪/১৪৫ ধারার নোটির্শ দিতে গিয়ে মাছ মারার বিষয়টি জেনেছি। বাদি অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।