পার্বতীপুরের ঐতিহাসিক মনপুরা মাঠে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

আমাদের প্রতিদিন
2024-04-19 03:26:07

পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধি:

পার্বতীপুর বেলাইচন্ডি ইয়ং সোসাইটি আয়োজিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ৭ম পর্বের ফাইনাল খেলায় হাজী সাহেবের জয় স্পোর্টিং ক্লাব পীরগঞ্জ (রংপুর) দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। এই টুর্নামেন্টে তারা প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করলো। ফাইনাল খেলায় তারা মনপুরা মাঠের গতবারের রানার-আপ বোদা উপজেলা ফুটবল একাডেমি (পঞ্চগড়) দলকে ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে। খেলা শুরুর প্রথমার্ধের ২ মিনিটেই জয় স্পোর্টিং দলের নাইজেরিয়ান খেলোয়াড় বেলালের একমাত্র গোলে

এগিয়ে যায় রংপুরের পীরগঞ্জ। টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ফাইনালে পিছিয়ে থাকা বোদা পঞ্চগড় দল শেষ পর্যন্ত গোল পরিশোধের প্রাণপন চেষ্টা করেও ব্যার্থ হয় এবং জয় স্পোর্টিং দলের বিজয় সুনিশ্চিত হয়। যদিও উভয় দলের দুই খেলোয়াড় অসৎ আচরণের কারনে রেফারী তাদেরকে লালকার্ড প্রদর্শন করে মাঠ ত্যাগে বাধ্য করেন। তারা হলেন, জয় স্পোর্টিং দলের ৭ নম্বর জার্সিধারী খেলোয়াড় মামুন ও বোদা পঞ্চগড় দলের একই জার্সিধারী খেলোয়াড় দূর্গা।

আজ শুক্রবার (০৯ ফেব্রুয়ারী) বিকালে বেলাইচন্ডি বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ঐতিহাসিক মনপুরা মাঠে ফুটবল খেলাটি অনুষ্ঠিত হয়। বেলাইচন্ডি ইয়ং সোসাইটির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বিপ্লব এর পরিচালনায় ও শাহজাহান আলী সাজুর সার্বিক তত্ত্বাবধানে উক্ত খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল কুমার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বতীপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল মোমেনিন (মোমিন) ও রুকশানা বারী রুকু, সৈয়দপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আজমল হক, পার্বতীপুর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সুলতানা নাসরিন, বেলাইচন্ডি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাদিকুল ইসলাম,পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্তরঞ্জন রায়, তদন্ত ওসি আব্দুল হাফিজ মোঃ রায়হান, শাহ হোটেল এর সত্ত্বাধিকারী আরাফাত হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক বেল্লাল হোসেন স্বপন সহ উন্মুক্ত মাঠের জমিদাতা সদস্যবৃন্দ, পুলিশ, সুধীজন সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

খেলাটিতে কানায় কানায় দর্শক সমাগমে পুরো মাঠ ভরে যায় এবং সকলেই ধৈর্য সহকারে ফাইনাল ম্যাচটি উপভোগ করেন। বিশেষ করে উল্লেখযোগ্য নারী দর্শকও খেলাটি উপভোগ করেন এবং নামাজের জন্য বিশেষ জায়গারও ব্যবস্থা ছিলো। বেলাইচন্ডি ইয়ং সোসাইটির সকল সদস্যবৃন্দ তাদের চৌকস স্বেচ্ছাসেবকগন দ্বারা পুরো মাঠ এবং গ্যারেজের

কঠোর নিরাপত্তা সাধন করেন।

খেলার সার্বিক ধারা বর্ণনায় ছিলেন, পার্বতীপুরের কীর্তি সন্তান ও স্বনামধন্য টিভি ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার খোরশেদ রায়হান ও বিশিষ্ট ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার তাইফুল ইসলাম তপু। খেলায় প্রধান রেফারীর দায়িত্ব পালন করেন- বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন রেফারী পাবনার তুষার, তার সহকারী দু'জন ছিলেন, পার্বতীপুরের আলমগীর ও পাবনার জাহাঙ্গীর। উল্লেখ্য নকআউট ভিত্তিক ৮ দলের এই টুর্নামেন্টটিতে ফাইনালে ম্যান অব দ্য ফাইনাল ও টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন জয় স্পোর্টিং দলের নাইজেরিয়ান খেলোয়াড় বেলাল এবং সেরা গোলকিপার নির্বাচিত হন বিজয়ী দলের ফিজার এবং

একই দলের সুশান্ত সেরা টিম ম্যানেজার নির্বাচিত হন। খেলা শেষে চ্যাম্পিয়ন দলকে ১ লক্ষ ২৫ হাজার ও ট্রফি এবং রানার-আপ দলকে ৭৫ হাজার টাকা ও ট্রফি প্রাইজমানি হিসেবে প্রদান করে টুর্নামেন্টের আয়োজক কমিটি। সবগুলো পুরস্কারই বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অথিতিবৃন্দ।