১৯ মাঘ, ১৪২৯ - ০১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ - 01 February, 2023
amader protidin

পীরগঞ্জে রাতের অন্ধকারে লুট হচ্ছে করতোয়া নদীর বালু

আমাদের প্রতিদিন
3 weeks ago
26


 

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি:

পীরগঞ্জে উপজেলার করতোয়া নদী থেকে বালু লুটের ঘটনায় জড়িত প্রভালশালীরা। দিনের পরিবর্তে রাতে বালু উত্তোলন করে বিশ্ব রোডে নিয়ে ফেলছে ১০ চাকার ড্রাম ট্রাক। ফলে এসব গাড়ি গ্রামীণ জনপদ খেয়ে ফেলছে বলে এলাকাবাসী দাবি করছে।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখাযায়, উপজেলার  করতোয়া নদীতে টোংরারদহ এবং জয়েন্তিপুর দুটি স্থানেও করতোয়ার চর ভেকু দিয়ে কেটে বালু পাচার করা হচ্ছে অভিন্ন কৌশলে। স্থানীয় প্রশাসনও বালু লুটেরাদেরকে রুখতে ব্যর্থ হচ্ছেন।

কাটাদুয়ার গ্রামের হাফেজ, নুরুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম এবং মুদি দোকানী মেরিনা বেগম বলেন, ১০ চাকার ড্রাম ট্রাক দিয়ে বালু বহনের কারনে রাস্তা ঘাটে পাশের ঘরবাড়িগুলো কাঁপা-কাঁপি করে। দেখে মনে হয় ভূমিকম্পনের রুপ ধারণ করে। গাড়ি যাতায়াতের কারনে রাতে ঘরে ঘুমানো যায়না। শুধু তাই নয়, স্কুল পড়ুয়া ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার করতে সমস্যা হয়। পীরগঞ্জে সরকারিভাবে বালুমহল না থাকলেও করতোয়া নদীর তলদেশ,চর এবং নদীপাড়ের অন্যের জমি থেকে প্রভাবশালীরা বালু উত্তোলন করছে। মজার ব্যাপার হলো, যারা বালু হরিলুট করছে,তাদের কারো এক শতাংশ জমিও নেই নদীপাড়ে। শুধু ক্ষমতা প্রয়োগ করে কৃষকের সর্বনাশ করে দিনেরাতে বালু লুটে নিচ্ছে। অনেক কৃষক ইতিমধ্যে সর্বশান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি উপজেলার পশ্চিমাঞ্চলের যে ক'টি সড়কের উপর দিয়ে বালু পরিবহন করা হচ্ছে, সে এলাকায় আন্তঃযোগেযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। ফেটে ভেঙ্গে ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে জনপদগুলি।

টুকুরিয়া ইউনিয়নের জয়েন্তিপুর এলাকার শামীম,লাবলু শরিফুল ইসলাম, বলেন অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলন ও ড্রাম ট্রাকে বালু পরিবহনের কারণে পাকা ও কাঁচা রাস্তা ভাঙ্গছে, ভাঙ্গছে ফসলী জমি, বাড়ি ঘর। ফলে জনদুর্ভোগ বেড়েছে। পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায় অভিযান চালিয়ে কয়েকটি স্যালোমেশিন ভাংচুর ও মামলা করার পর ড্রাম ট্রাকে বালু পরিবহন নিষিদ্ধ করে দিয়েছেন। যে কারনে বর্তমানে দিনের পরিবর্তে রাতে ড্রাম ট্রাকে বালু পরিবহন করা হচ্ছে। কিন্তু বালু লুট বন্ধ হচ্ছে না। মনে হচ্ছে, স্থানীয় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে যাচ্ছেন লুটেরার দল।

স্থানীয় সচেতন মহল জানান,রংপুর-দিনাজপুর জেলার পীরগঞ্জ, নবাবগঞ্জ, ঘোড়াঘাটের প্রায় ২৫টি গ্রামের ভিতর দিয়ে বয়ে গেছে করতোয়া নদী। নদীটির তলদেশে বিভিন্ন স্থানে বোমা এবং স্যালোমেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনে নেতাদের মাঝে অনেকটা লুটপাটের প্রতিযোগিতা চলছে। নদীপাড়েই কোটি কোটি টাকা মুল্যের হাজার হাজার ট্রাক বালুর মজুদ রয়েছে।বালু তোলার কারণে টুকুরিয়া ইউনিয়নের মোনাইল দূর্গাপুরে প্রায় ১ কিলোমিটার ,কাটাদুয়ার গ্রামের ২ কিলোমিটার পুরোটাই ভেঙে অচল হয়ে গেছে।

রাস্তা ও জমি রক্ষায় একাধিকবার মানববন্ধনও করা হয়েছে। কোন কিছুতেই কাজ হচ্ছে না। জনপদ রক্ষার্থে এসব অবৈধ বালু কারবারিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।  

সর্বশেষ

জনপ্রিয়