২৩ মাঘ, ১৪২৯ - ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ - 06 February, 2023
amader protidin

হরিপুরে টপটেন চা খেতে ক্রেতাদের ভীড়

আমাদের প্রতিদিন
3 weeks ago
28


 

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধিঃ

দুধ আর লাল চা। সাথে পাওয়া যায় মালাইয়ের চা। ভিন্ন এই চায়ের স্বাদ নিতে দোকানে ভীড় করছেন ঠাকুরগাঁওয়ের সীমান্তবর্তী উপজেলা হরিপুরের পশ্চিম বনগাঁও বাজারে। দাম সাধারণ চা থেকে ৫-১০ টাকা বেশি হলেও এই চায়ের স্বাদ নিতে  বিভিন্ন স্থান থেকে দোকানে ছুটছেন চা প্রেমীরা।

ক্রেতাদের মতে মালাইয়ের তৈরি  চা টপটেন চা। সেই চা একদিন না খেলে মাথাই ঠিক থাকে না যা স্বাদে গন্ধে অতুলনীয়। একবার খেলে আবারো খেতে মন চায়, এমনটাই বলছিলেন দোকানে মালাই চা খেতে আসা কয়েকজন ক্রেতা।

পশ্চিম বনগাঁও এলাকার বাসিন্দা তরিকুল ইসলাম। নিজ এলাকার বৃহৎ এ বাজারে দীর্ঘ ১৫ বছর যাবৎ এভাবেই চায়ের দোকান করে আসছেন তিনি। প্রথমে ছোট করে ফুটপাতের মতো চায়ের দোকান করে শুরু করেন। বাজারের উন্নয়নের সাথে সাথে তার দোকানের অবস্থারও পরিবর্তন ঘটতে শুরু করে। ইতিমধ্যে তরিকুল ভাইয়ের মালাই চা হৃদয় ছুঁয়েছে উপজেলাসহ আশে-পাশের উপজেলার চা প্রেমী মানুষদের।

চা প্রেমী মিলন নামের এর ক্রেতা জানান, আমি প্রথম এখানে চা খেলাম।  অসাধারণ এখানকার মালাই চা।

আরেক ক্রেতা বলেন, এই বাজারের মধ্যে এমনকি সমগ্র উপজেলা জুড়ে তরিকুল ভাইয়ের চা টপটেন চা। একদিন না খেলে ভালো লাগেনা। তাই নিয়মিত খেতে আসি। এবং জেলা থেকেও খেতে আসে চা প্রেমীরা।

চা দোকানি তরিকুল জানান, প্রতিদিন গড়ে ১.৫ থেকে ২ মন গরুর দুধের চা বিক্রি হয়। আমার  দোকানে ৩ রকমের চা পাওয়া যায়। যার মধ্যে লাল চা ৫ টাকা, স্পেশাল চা ১০ টাকা এবং মালাই চা ১৫ টাকা প্রতি কাপ। তার দোকানে প্রতিদিন নিজ উপজেলা সহ বিভিন্ন জায়গায় থেকে আসা মানুষ চা খেতে ভীর জমাচ্ছে। আল্লাহর রহমতে ভালোই বেচাকেনা হয় বলে জানান চা বিক্রেতা তরিকুল।  

সর্বশেষ

জনপ্রিয়