১৯ মাঘ, ১৪২৯ - ০১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ - 01 February, 2023
amader protidin

বিনা বেতনে ২৫ বছর চাকরি তবুও হয়নি নিয়োগ!

আমাদের প্রতিদিন
2 weeks ago
53


গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার গুণভরি দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে পরিচ্ছন্নতাকর্মী পদে ২৫ বছর ধরে চাকরি বরে আসছিলেন পুষ্প কুমার বাসফোর নামের এক নারী। এরই মধ্যে একই পদে অন্য একজনকে নিয়োগ দিয়েছি প্রধান শিক্ষক। এই নিয়োগ বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে হরিজন সম্প্রদায়ের মানুষেরা।গতকাল শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ বাসফোর (হরিজন) কল্যাণ পরিষদ গাইবান্ধা জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দরা গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে। শেষে তারা জেলা শহরের ডিবি রোডে এক মানববন্ধন মিলিত হয়।

এসময় নিয়োগ বঞ্চিত পুষ্প কুমার বাসফোর লিখিত বক্তব্যে বলেন গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার গুণভড়ি দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মীর পদ দীর্ঘদিন ধরে ফাঁকা রয়েছে। ফলে তিনি চাকরির আশায় বিনা বেতনে ১৯৯৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫ বছর ধরে সেখানে কাজ করছেন। কিন্তু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতলুবর রহমান বুলু ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মজনুর রশিদ পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগের জন্য পুষ্প কুমার বাসফোরের কাছে সাড়ে ৩ লাখ টাকা দাবি করেন। এতে তিনি সাড়ে ৩ লাখ টাকা দেয়ার জন্য রাজি হয়ে প্রধান শিক্ষককে অগ্রিম ২ লাখ টাকা প্রদান করেন। কিন্তু তার পরও প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি যোগসাজস করে গোপনে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ওই বিদ্যালয়ের নাইট গার্ড মহসিন আলীর ছেলেকে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে নিয়োগ দেন। বিষয়টি তিনি জানতে পেরে প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করলে নিয়োগের ব্যাপারে সময়ক্ষেপন করতে থাকে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করা হয়, নিয়মানুযায়ী পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে একজন হরিজন সম্প্রদায়ের লোককে নিয়োগ দেয়ার কথা। কিন্তু এখানে তার ব্যত্যয় ঘটেছে। তাই সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রসাশক ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে গুণভরি দ্বি-মূখি উচ্চ বিদ্যালয়ে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগের সুষ্ঠু তদন্ত, ওই নিয়োগ বাতিল করে তাকে নিয়োগ এবং প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির নিয়োগ বাণিজ্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন হরিজন যুব ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক রাজেশ বাসফোর, বাংলাদেশ বাসফোর (হরিজন) কল্যাণ পরিষদ গাইবান্ধা জেলা সভাপতি সন্তোষ বাসফোর, বকুল কুমার বাসফোর, রতন চন্দ্র বাসফোর, লিটন কুমার বাসফোর, যোগেস্বর বাসফোর, সাজন বাসফোর প্রমুখ।

এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক মতলুবর রহমান বুলু বলেন, ওই বিদ্যালয়ের নাইট গার্ড মহসিন আলীর ছেলেকে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে পুষ্প কুমার বাসফোরকেও   কাজ করতে বলা হয়েছে। যাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে তাকে এক বছর পর পিয়ন পদে স্থানান্তর করে পুষ্প কুমারের বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়