২৩ মাঘ, ১৪২৯ - ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ - 06 February, 2023
amader protidin

রাতের আঁধারে মসজিদের শতাধিক আমগাছ নিধন

আমাদের প্রতিদিন
2 weeks ago
31


পূর্ব শত্রুতার জের

সবুজ আহম্মেদ, মিঠাপুকুর:

মিঠাপুকুরে মসজিদের শতাধিক হাড়িভাঙা আমগাছ কেটে সাবাড় করেছে দুবৃর্ত্তরা। রাতের আঁধারে পূর্ব শত্রুতার জেরে গাছগুলো কেটে ফেলেছে বলে দাবি করেছেন মসজিদ কমিটি। বুধবার রাতে গাছগুলো কেটে ফেলার ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নের আন্দারকোটা গ্রামে।

এলাকাবাসি ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আন্দারকোটা গ্রামের উত্তর আন্দারকোটা পীর মহিউদ্দিন (রহঃ) জামে মসজিদের প্রায় ২ একর ৭২ শতক সম্পত্তিতে ৫ বছর আগে হাড়িভাঙা আম বাগান করেন মসজিদ কমিটি। ওই সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলছে ওই গ্রামের আকমল হোসেন, মিজানুর রহমান, ইদ্রিস আলী, ফিদ্দুস মিয়া, ইউসুফ আলী ও সুলতান মিয়ার সাথে। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকবার শালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেখানেও সমাধান না হওয়ার বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়। এ বিষয়ে আদালতে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এরপরও মসজিদ কমিটির লোকজনকে নানাভাবে হুমকি প্রদান করছিল প্রতিপক্ষরা। বুধবার দিবাগত রাতে আকমল হোসেন, মিজানুর রহমান, ইদ্রিস আলী, ফিদ্দুস মিয়ার নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা শতাধিক গাছ কেটে ফেলেছে বলে দাবি করেন মসজিদ কমিটির লোকজন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, গ্রামের শেষপ্রান্তে পশ্চিম দিকে প্রায় ৪শ গাছের একটি হাড়িভাঙা আম বাগান। গাছগুলোতে মুকুল আসা শুরু করেছে। প্রায় ৩ একর জমিতে বাগানটির সেচ প্রদানের জন্য রয়েছে একটি অগভীর নলকুপ। বাগানটির দক্ষিণের দিক হতে মোটাতাজা প্রায় ১শ গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অগভীর নলকুপটি।

উত্তর আন্দারকোটা পীর মহিউদ্দিন (রহঃ) জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আজিজার রহমান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে প্রতিপক্ষ গাছগুলো কেটে ফেলার ফন্দি আঁটছিলো। বেশ কয়েকবার আমাদের হুমকিও দিয়েছে। ঘটনার দিন সকালবেলা গ্রামের লোকজন দেখতে পায় গাছগুলো কেটে ফেলা হয়েছে।’ মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মকিব মন্ডল বলেন, ‘গাছগুলোকে সন্তানের মত করে বড় করেছি। ফল দেওয়া গাছগুলো কেটে ফেলল, আমরা এর কঠোর বিচার চাই।’ মসজিদ কমিটির কোষাধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান মন্ডল বলেন, ‘প্রতি বছর আমরা প্রায় সাড়ে ৩ হতে ৪ লাখ টাকায় বাগানটি লিজ প্রদান করি। টাকাগুলো মসজিদের উন্নয়নে কাজে লাগানো হয়। গাছগুলো কেটে ফেলার ফলে গাছের মূল্য ও লিজের টাকাসহ প্রায় ১০ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।’

অভিযুক্ত মিজানুর রহমান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে তাদের সাথে বিরোধ চলছিল। আমরাও একটি নতুন মসজিদ করেছি, তাই আমরা চেয়েছিলাম আমাদেরও জমি দেওয়া হোক। কিন্তু তারা দেয়নি। তবে, গাছ কেটে ফেলার সঙ্গে আমাদেন সম্পৃক্ততা নেই।’ মিঠাপুকুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়