কুড়িগ্রামে উদ্ধার বাক প্রতিবন্ধী মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে অভিভাবকের হাতে তুলেদেয় পুলিশ

আমাদের প্রতিদিন
2024-06-02 01:28:29

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :

"মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোরকে নিয়ে বিপাকে পুলিশ" শীরনামে যুগান্তর অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ হলে খোঁজ মেলে পরিবারের। তার নাম সজীব কুমার দাস (২০)। সে গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া গ্রামের মৃত লক্ষণ চন্দ্র দাসের পুত্র। তার জ্যাঠা নগেন চন্দ্র দাস অনলাইন ও ফেসবুকে ভাতিজার ছবিদেখে গাইবান্ধা সাঘাটা থানায় যোগাযোগ করেন। পরে সাঘাটা থানা কুড়িগ্রাম সদর থানায় যোগাযোগ করে পরিচয় নিশ্চিত করে। রোববার বিকালে কুড়িগ্রাম সদর থানায় অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ শাহরিয়ার আনুষ্ঠানিক ভাবে জ্যাঠা নগেন চন্দ্র দাসের হাতে সজীব কে হস্তান্তর করে।

জানাযায়, শনিবার বিকালে স্হানীয়  লোকজন কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ মার্কেটের সামনে বাক প্রতিবন্ধী এবং মানসিক ভারসাম্যহীন ঐ যুবককে ঘোরাফেরা করতে দেখে কুড়িগ্রাম থানা পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানার নারীর,শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী  হেল্প ডেক্স এর তত্ত্বাবধানে নিরাপদ হেফাজতে রাখে।

কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ শাহরিয়ার বলেন, যুগান্তরসহ বিভিন্ন পত্রিকার অনলাইন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ খবর ছড়িয়ে পড়ায় সজীব এর পরিচয় পাওয়া যায়। পরে অফিসার ইনচার্জ সাঘাটা থানা গাইবান্ধা এর সহযোগিতায় তার প্রকৃত ঠিকানা সনাক্ত করা হয়।  পুলিশের অনুসন্ধানে জানাযায় উদ্ধারকৃত যুবকের নাম-সজীব কুমার দাস, বয়স ২০ বছর ।  পিতা- মৃত লক্ষণ  চন্দ্র দাস, গ্রাম -গজারিয়া, থানা ফুলছড়ি, জেলা গাইবান্ধা। ছেলেটির পিতা গতবছর বজ্রপাতে মৃত্যুবরণ করেছে। পরবর্তীতে তার জ্যাঠা নগেন চন্দ্র দাস, পিতা-মৃত নোবাই চন্দ্র দাস এর নিকট কুড়িগ্রাম থানার সাধারণ ডায়েরি নম্বর-১০৮৩, তারিখ -১৯ /০৩/২০২৩ ইং মূলে জিম্মায় প্রদান করা হয়।