ভূরুঙ্গামারীতে পবিত্র কুরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে মাদকাসক্ত যুবক  আটক

আমাদের প্রতিদিন
2024-05-15 16:35:12

আরমান আলী,ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম):

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে পবিত্র কুরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে মিজানুর রহমান (২৮) নামের মাদকাসক্ত এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার রাত দশটার দিকে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের পাইকেরছড়া ঢাকাইয়া পাড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক মিজানুর ওই এলাকার ছদরুল ইসলামের (ছদু) পুত্র। পাইকেরছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, মিজানুর নামের ওই যুবক মাদকাসক্ত। এ কারণে স্বামী-স্ত্রী দুজনের মধ্যে মাঝে মধ্য ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। গত প্রায় এক মাস আগে স্ত্রীর সাথে নেশার টাকা নিয়ে ঝগড়া হয়। এতে তার স্ত্রী রাগ করে বাবার বাড়ি চলে যায়। পরে মিজানুর একাধিকবার তার স্ত্রীকে নিতে শ্বশুর বাড়িতে যান। কিন্তু তার স্ত্রী ফিরে আসতে অস্বীকৃতি জানায়। এ সময় মিজানুর তার বাবা ছদরুল ইসলামকে ও তার শ্বশুর বাড়ি থেকে স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে বলে। এতে তার বাবা রাজি না হলে ওই যুবক শনিবার দূপুরের দিকে তার বাবার  সাথে রাগান্বিত হয়ে ঘরের আসবাব পত্র ভাংচুর শুরু করে । এক পর্যায়ে তার ঘরে থাকা পবিত্র কোরআন শরিফ মাটিতে ছুড়ে ফেলে দেয়।

কুরআন অবমাননার মত ন্যাক্যারজনক ঘটনার খবর পেয়ে ফুঁসে ওঠে তাওহীদি জনতা। শনিবার (২৯ এপ্রিল) এলাকার শতশত ধর্মপ্রান মুসল্লী ও তৌহিদী জনতা রাত সাড়ে আটটার দিকে মিজানুরের বাড়ি ঘেরাও করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী করে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকে।

খবর পেয়ে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশের একটি দল দ্রæত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে ওই যুবককে  আটক করে। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনার আইনুনাগ ব্যাবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলে উত্তেজিত তৌহিদী জনতা তাদের বিক্ষোভ কর্মসূচী প্রত্যাহার করে নেয়।

আটক মিজানুরের ছোট ভাই মইনুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, আমার বড় ভাই ও তার স্ত্রীর মধ্য ঝগড়া বিবাদের এক পর্যায়ে ভাবী তার বাবার বাড়ি চলে যায়। ভাবীকে আনতে বাবাকে বললে বাবা যেতে অস্বীকার করায় বড় ভাই রাগের বশীভূত হয়ে তার ঘরের আসবাপত্র ভাংচুর ও ছুড়ে মারে। ভাই কোরআন অবমাননা করেছেন কিনা তা আমি জানিনা।কারন ঘটনার সময় আমি বাড়িতে ছিলাম না। ঘটনা তেমন কিছু ঘটেনি। তবে কোরআন অবমাননার মত কোন ঘটনা ঘটেনি বলে আমি জানতে পেরেছি।

পাইকের ছড়া ইউপির সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সদস্য আবু সায়াদাত বজলুর রহমান সাদ্দাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ছেলেটি সবসময় নেশা করত। নেশার টাকা জোগাড় করতেই স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। এক পর্যায়ে তার বউ বাবার বাড়ি চলে যায়।

এ বিষয়ে পাইকের ছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক সরকার বলেন, আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে লোকজনের কাছে যতটুকু জানতে পেরেছি ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

ভূরুঙ্গামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, রাতে খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে ওই যুবককে  আটক করে থানায় নিয়ে আসি। তবে ঘটনার কিছুটা হলেও সত্যতা পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগে আটক যুবক মিজানুরের বিরদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার কারনে মামলা দায়ের করে আজ সকালে তাকে কুড়িগ্রাম বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার পবিত্র কুরআন অবমাননার অভিযোগে ফাতেমা খাতুন (৫০) নামের এক নারীকে আটক করে জেল হাজতে পাঠায় ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশ।