সাঘাটায় রেলের পুরাতন মালামাল অভিনব কৌশলে পাচারকালে জনতার হাতে আটক

আমাদের প্রতিদিন
2024-07-22 19:49:37

সাঘাটা( গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:

রেলের পুরাতন মালামাল অভিনব কৌশলে পাচার করার সময় গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার কলেজ মোড় এলাকায় স্থানীয় জনগণ হাতে নাতে আটক করে। রেলওয়ের কর্মকর্তাদেরে উপস্থিতিতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ রেলের লোকজন মাঝে মধ্যে রেলওয়ের পুরাতন মালামাল গোপনে বিক্রি করে আসছে।

স্থানীয় লোকজন জানায় গত বুধবার সন্ধ্যায় বালাসী ঘাট থেকে একটি কাঁকড়া গাড়ী ভর্তি রেলের পুরাতন মালামাল বোনারপাড়ার দিকে যাওয়ার পথে বোনারপাড়া কলেজ মোড় নামক স্থানে পৌছিলে স্থানীয় লোকজনের কাছে মালামাল গুলো চোরাই বলে সন্দেহ হলে তারা গাড়ীটিসহ মালামাল আটক করে গাড়ীর সাথে থাকা লোকজনের কাছে মালামাল গুলোর বিষয়ে জানতে চায়। এসময় গাড়ীতে থাকা এক ব্যক্তি স্থানীয় লোকজনের কাছে বালাসী ঘাট হতে পি-ওয়ে মালামাল এসএসএই/ ওয়ে/বোনারপাড়া অফিসে পৌছানোর জন্য রোড পাশ এর একটি ০১/২৩ নং চালান দেখান। উক্ত চালানে মালের পরিমান লেখা ছিলো ৯ পিচ লিভার টামলার, ১৪ পিচ চেক রেল,১ পি ডিপ ট্রলী, ১পিচ জিংক্রু, সাবল ৬ পিচ ও রেল লাইন ১০ পিচ ।

 কিন্তু ওই কাগজে তুলনায় গাড়ীতে মালামালের পরিমান কয়েক গুণ বেশী হওয়ায় স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ সত্য প্রমানিত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি বোনারপাড়া রেল কতৃপক্ষকে অবিহিত করলে রেলের আরএনবি ইনস্পেক্টর দিলিপ চন্দ্র ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে গাড়িতে মালামাল দেখে কাগজের সাথে মালামালের গড়মিলের বিষয়টি স্বীকার করেন। পরে তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলে, উপস্থিত স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নাছিরুল আলম স্বপনের হস্তক্ষেপে স্থানীয় লোকজন রেলের ওই মালামালের গাড়ীটি ছেড়ে দেয়।

এর আগেও ২০২১ সালে আগষ্ট মাসে বোনারপাড়া রেলওয়ের প্রকৌশল শাখার গুদাম থেকে প্রায় ৫০ টন ওজনের ৭ হাজার ৪০০পিচ ফিশ-প্লেস গায়েব হয়ে গেছে।এবিষয়ে বোনারপাড়া রেলওয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত সিনিয়র সাব ইঞ্জিনিয়ার মাজেদুল ইসলাম এর সাথে কথা হলে তিনি কাগজের সাথে মালামালের গড় মিলের বিষয়ে জানান, বালাসী ঘাট হতে কাগজে উল্লেখিত ওই মালামাল বোনারপাড়ায় আনার সময়  সেখানকার অরক্ষিত মালামাল গুলো গাড়ীতে করে বোনারপাড়া গুদামে রাখার জন্য আনা হচ্ছিলো। জি আর পি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনা শুনেছি এবং বালাসী ঘাট থেকে রেলের কিছু মালামাল বোনারপাড়ায় পৌছানোর বিষয়টি তিনি শুনেছেন, কিন্তু চুরি বা মালামাল পাচার হওয়ার কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।