খানসামায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক আটক ১

আমাদের প্রতিদিন
2024-06-28 19:28:35

খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ-

দিনাজপুরের খানসামায় লিচু কুড়াতে নিয়ে গিয়ে ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আজিমুল রহমান আকাশ (১৬) নামে এক যুবককে আটক করেছে খানসামা থানা পুলিশ।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮ মে) বিকেলে উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের ব্র্যাক অফিসের পাশে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। গুরুতর অসুস্থ শিশুটিকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাকেরহাটে পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। বখাটে চোর আকাশ একই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বখাটে যুবক আকাশ প্রতিনিয়ত করত চুরি। সে মানুষের টাকা নেওয়া থেকে বিভিন্ন জিনিস চুরি করত। বেলা তিনটা থেকে সাড়ে তিনটা দিকে দুজনকে এক সঙ্গে দেখা যায়।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, আমার নাবালিকা মেয়ে প্রতিদিনের ন্যায় বাড়ীর আশপাশ এলাকায় খেলাধুলা করার জন্য তার খেলার সাথীদের সাথে বাহিরে যায়। এমতাবস্থায় বিকাল অনুমান ০৩.৩০ ঘটিকার সময় আকাশ আমার নাবালিকা মেয়েকে লিচু খাইতে দেবে মর্মে মেদ্ধাপাড়া গ্রামস্থ সামাজিক কবরস্থানের উত্তর পার্শ্বে থাকা ভুট্টা ক্ষেতের ভিতরে নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পরে আকাশ আমার মেয়েকে তার পরিহিত সবুজ রংয়ের প্রিন্টের হাফ প্যান্ট খুলিতে বলে। আমার মেয়ে তার পরিহিত প্যান্ট খুলিতে অস্বীকৃতি জানাইলে জোর পূর্বক ভাবে টানাহেচড়া করতঃ আমার মেয়ের পরিহিত প্যান্ট খুলিয়া ফেলে। তখন তার যৌন কামনা চরিতার্থ করার নিমিত্তে তার পরিহিত জিন্সের প্যান্ট খুলিয়া আমার মেয়েকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ভাবে ধর্ষণ করে। তখন আমার মেয়ে ডাকচিৎকার করিতে থাকিলে বিবাদী আমার মেয়ের মুখ চাপিয়া ধরে। আমার মেয়ের গোঙ্গানীর শব্দ শুনিতে পাইয়া সাক্ষী ১। মোছাঃ হাসনা বেগম (৬২), স্বামী-মোঃ আয়নাল হক, ২ মোঃ আঃ আজিজ (৪৫), পিতা-মোঃ উকিল মিয়া, ৩। মোঃ রবিউল ইসলাম (৩৫), পিতা-মোঃ হাশেন আলীসহ আরো অনেকে আগাইয়া আসিয়া আকাশকে বিকাল অনুমান ০৪ ০৫ ঘটিকার সময় আমার মেয়ের শরীরের উপর উলঙ্গ অবস্থায় দেখিতে পায়। তখন বিবাদী সাক্ষীগণকে দেখিতে পাইয়া দৌড়াইয়া ঘটনাস্থল হইতে পালিয়ে যায়। তখন আমি সাক্ষীগণের মাধ্যমে সংবাদ প্রাপ্ত হইয়া বর্ণিত স্থানে আসিয়া সাক্ষী। ও আমার মেয়ের নিকট ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত শুনি এবং আমার মেয়েকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আকাশের বাবা সিরাজুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি পেশায় একজন টিউবওয়েল মিস্ত্রি। প্রতিদিনের মত আজকেও কাজে গেছিলাম। কাজ থেকে ফিরে এসব শুনি। আমার ছেলে উদ্ভট, আমাদেরকে দাম দেয় না। আমার ছেলে গাজা খায়। আমি কিছু বলতে গেলে আমার ছেলে বটি দা নিয়ে আমার কাছে তেরে আসে।

খানসামা থানার ওসি (তদন্ত) মো. তাওহীদুল ইসলাম বলেন, সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আকাশকে আটক করা হয়েছে। ধর্ষণের অভিযোগে আটক আকাশকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।