নীলফামারী-৪ আসনে ভোটের প্রস্ততি: ঘর গোছাতে ব্যাস্ত তিন দল

আমাদের প্রতিদিন
2024-07-22 00:00:25

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নীলফামারী-৪ আসনে উত্তাপ ছড়িয়েছে রাজনীতিতে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, জাতীয় পাটি ও বিএনপি নিজ নিজ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো তৃণমুলে সদস্য অন্তভুক্তিতে দলকে গুছিয়ে ওয়াড ও ইউনিয়ন কমিটি সমৃদ্ধ করছেন।

সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী সুত্র মতে, উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়ন পর্যায়ে পুর্ণাঙ্গ কমিটি রয়েছে।

অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনগুলো শক্তিশালী করতে কর্মিসভার মাধ্যমে ওয়াড ও ইউনিয়ন, পৌর পুণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হচ্ছে। কর্মী সভায় সরকারের দৃশ্যমান উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে নিবিড় পর্যবেক্ষনের মাধ্যমে নতুন সদস্য অর্ন্তভুক্ত করা হচ্ছে।

এর মধ্যে ওলামা লীগ, মহিলা লীগ, তাতী লীগ, মৎস্যজীবি লীগের অনেক এলাকায় কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে অথবা আহকবায়ক কমিটি রয়েছে। তাই ওই সকল কমিটি আগামী এক মাসের মধ্যে পুর্ণাঙ্গ করার প্রস্ততি চলছে।

কমিটিগুলোতে প্রবীণদের পাশাপাশি নবীনদের নজরে রাখা হয়েছে। নেতৃত্ব বাছাইয়ে জাতীয় নির্বাচন ও নিজ এলাকায় কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবেন এমন ত্যাগী, পরীক্ষিত ও প্রভাবশালীদের ওপরই বেশি ভরসা রাখা হচ্ছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন জানান, তৃণমুলে সংগঠন শক্তিশালী করতে নিবিড় শ্রম দিতে হচ্ছে। কারণ সামনে জাতীয় নির্বাচন।

এর আগেই তৃণমূল আওয়ামী লীগের ঐক্য সুদৃঢ় করতে ও দলকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার লক্ষ্যেই বিভিন্ন ইউনিয়নে কর্মী সম্মেলন করা হচ্ছে। দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার কারণে তৃণমূলে বিভক্তি, দ্বদ্ব, কোন্দল ও অসন্তোষ ছিল। তা মিটিয়ে দলকে উজ্জবনী শক্তির নেতৃ¡বৃন্দদের গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

এদিকে, জাতীয় নির্বাচন কে সামনে রেখে সৈয়দপুর জেলা বিএনপি ভিন্ন পথে হাটছেন। রাষ্ট্র মেরামতের ২৭ ও অন্যন্য ১০ দফা দাবি সরকারকে মেনে নেয়ার জন্য চালিয়ে যাচ্ছে আন্দোলন। আবার এ আসনে নির্বাচনী প্রস্ততিতে কিশোরগঞ্জ থানায় ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি করা হয়েছে।

এছাড়া দুই থানা, ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ৩০৩ জনের ভোটে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা কমিটি গঠন করা হয়েছে নির্বাচনের মাধ্যমে। সেচ্ছাসেবক দল, যুব দল, কৃষক দলের পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে তারা অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো গুছিয়ে নেয়া হবে জানা গেছে।

সৈয়দপুর জেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার বলেন, কেন্দ্রের নির্দেশে দল গোছানো হচ্ছে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আদায়ের লক্ষ্যে সকল প্রস্ততি চলছে। এর জন্যই তৃণমূলে সংগঠনকে শক্তিশালী করা হচ্ছে। আর মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচণের প্রক্রিয়া চলছে।

এ আসনে জাতীয় পার্টি মহাজোটগত ভাবে বর্তমান এমপি আহসান আদেলুর রহমান আদেল ক্ষমতায় রয়েছেন। তিনি দলকে তৃণমুল পর্যায়ে গোছাতে নিয়মিত কর্মী সম্মেলন করছেন। সময় পেলেই ছুটে আসছেন এলকায়।

বিভিন্ন রাজনৈতীক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক কর্মকান্ডে যোগ দিয়ে দলকে উজ্জীবিতের চেষ্টা করছেন। তবে এ আসনে দলটির অপর কান্ডারী আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিকও দল গোছাতে ব্যাস্ত। এই নেতার হয়ে সোমবার (২৯ মে) দুপুরে সৈয়দপুর ক্যান্ট বাজার মোড়ে পাটির চেয়ারম্যান গোলাম কাদেরের গাড়ির থামিয়ে মনোনয়ন দাবী করেন স্থানীয় নেতাকর্মী ও ক্যাম্পবাসি।

এ সময় সৈয়দপুর পৌর জাপার সদস্য সচিব রাকিব খান, উপজেলা জাপার সদস্য সচিব, আলতাফ হোসেন, যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুদ্দিন অরুন, জেলা যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান ভুট্টুসহ অনেক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তারপরেও পার্টিকে সুসংগঠিত করতে যুব সংহতি, মহিলা পাটি, শ্রমিক পাটি, জাতীয় ছাত্র সমাজসহ সকল অঙ্গ সংগঠন গোছানো হচ্ছে।