কুড়িগ্রামে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্ধারিত স্থান পরিদর্শন করলেন- ভুটানের রাজা

আমাদের প্রতিদিন
2024-05-29 16:07:19

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :

ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক আজ বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে কুড়িগ্রাম ধরলা সেতুর পূর্ব প্রান্তে  ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের মাধবরাম এলাকায় ভুটানিজ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের জন্য নির্ধারিত স্থান পরিদর্শন করেন।

পরে তিনি সড়ক পথে জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দর দিয়ে ভারত হয়ে ভুটানের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন বিকাল ৩ টায় ।

ভুটানের রাজা ১৪ সদস্যের সফর সঙ্গী নিয়ে সকালে সৈয়দপুর বিমান বন্দরে অবতন করেন। পরে সড়ক পথে দুপুর পৌনে ১২টায় কুড়িগ্রাম সার্কিট হাউজে পৌছেন। সেখানে মধ্যাহ্ন ভোজ শেষে দুপুর দেড়টায় অর্থনৈতিক অঞ্চলের  নির্ধারিত স্থান পরিদর্শন করেন। এসময় রাস্তার দুপার্শ্বে শত শত মানুষ ভীড় করে রাজাকে এক নজর দেখার জন্য।  কিন্তু রাজা ছিলেন কঠোর নিরাপত্তা বললের মধ্যে। তবে রাজা গাড়িতে বসে গ্লাসের ভীতর থেকে হাত নড়ে উষ্ণ শুভেচ্ছার জবাব দেন। এতেই খুশী সাধারণ মানুষ। তারা স্বপ্ন দেখছেন অর্থনৈতিক অঞ্চল বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে এ জনপদের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে।

এ সময় তথ্যমন্ত্রী এম,এ আরাফাত, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সংসদ সদস্য ডাঃ হামিদুল হক খন্দকার, সংসদ সদস্য বিপ্লব হাসান পলাশ, বেজার নির্বাহী  চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ  সাইদুল আরীফ ও পুলিশ সুপার আল আসাদ  মোঃ মাহফুজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ভুটানের রাজার কুড়িগ্রাম সফরের বিষয়টি ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন স্থানীয় ও ব্যবসায়ীরা।

আর ভুটানের রাজার আগমনকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তাসহ সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করেন স্থানীয় প্রশাসন। ধরলা নদীর পুর্ব পাড়ে ২১৯ একর জমির উপর গড়ে তোলা হবে জিটুজি ভিত্তিতে এ বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চল।

২০১৫ সালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ মাঠে এক জনসভায় এ  জেলায় একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন। ভুটানের রাজার ৪ দিনের ঢাকা সফরের দ্বিতীয় দিন ২৫ মার্চ সোমবার ঢাকায় কুড়িগ্রামে ভুটানিজ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও ভুটান সরকারের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। সেই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল পরিদর্শন করেন রাজা।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান ( সিনিয়র সচিব)  শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, "ভূটানের রাজা কুড়িগ্রামের অর্থনৈতিক অঞ্চল দেখে খুশি হয়েছেন।  জানিয়েছেন যতদ্রুত সম্ভব এ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ভুটানের বিনিয়োগ শুরু হবে। তিনি আরো আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন কাজ শুরু হলে রাজা আবারও কুড়িগ্রাম সফর করবেন। " এ থেকে আমরা আশাবাদী খুব শীঘ্রই কুড়িগ্রামের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূটান সরকারের সহায়তায় অর্থনৈতিক অঞ্চলটি চালি হবে।