রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে বিভাগীয় কমিশনারের মতবিনিময়

আমাদের প্রতিদিন
2024-06-24 01:17:57

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রংপুরকে পরিচ্ছন্ন ও গ্রীণ সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে সকলকে নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেছেন, রংপুর সম্ভাবনায় বিভাগ। এখানকার কৃষিভিত্তিক অর্থনীতিকে কাজে লাগিয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। আমরা চাই রংপুর সবদিক থেকে এগিয়ে যাক। সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে শিক্ষা-সংস্কৃতি, স্বাস্থ্যসেবা ও কৃষি-অর্থনীতির উন্নয়নসহ জীবনমানের উন্নয়নে আরো বেশি নজর বাড়ানো গেলে রংপুর বিভাগ অন্যান্য বিভাগের চেয়ে উন্নত হবে। সব বিভাগের চেয়ে রংপুর বিভাগ এগিয়ে থাকুক, আমার দায়িত্ব পালনে সেই চেষ্টাটাই করব।

সোমবার (২২শে এপ্রিল) দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। রংপুরের নবাগত বিভাগীয় কমিশনারের সাথে জেলার বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে জেলা প্রশাসন। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান।

বক্তব্যে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. জাকির হোসেন এই বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা, সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জিং ইস্যুগুলো তুলে ধরে বলেন, সরকারের প্রতিটি উন্নয়ন উদ্যোগের সাথে রংপুরের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে আমাদের সবার আন্তরিক প্রচেষ্টা থাকা চাই। যেসব কাজ করলে রংপুর বিভাগীয় জেলা হিসেবে আরো উন্নত হবে সেসব প্রকল্প সরকার সংশ্লিষ্টদের কাছে তুলে ধরা হবে। রংপুরকে পরিকল্পিতভাবে সাজানোর প্রয়োজন বোধ করছি। আমরা রাজশাহীর মতো পরিচ্ছন্ন সিটি চাই, এজন্য আমাদেরকে পরিচ্ছন্ন থাকার চেষ্টাটাও শুরু করতে হবে। শুরু না করলে লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে না।

তিনি আরও বলেন, যোগদানের পর থেকে খেয়াল করছি এই শহরে মশা-মাছির উপদ্রব অনেক বেশি। সাধারণ মানুষ মশার কামড়ে অতিষ্ট। আমি নিজেও মশার কামড়ে সেটি  উপলব্ধি করতে পারছি। বিষয়টি নিয়ে সিটি করপোরেশনের সাথে আমার কথা হয়েছে। তারা দ্রুত মশা নিধন কার্যক্রম শুরুর আশ্বাস দিয়েছে। আমি মনে করি শ্যামাসুন্দরী খালসহ অন্যান্য খালের সংস্কারটাও জরুরি। এ জন্য আমাদেরও কিছু কাজ করতে হবে। শুধু সংস্কার করলে হবে না, এটি যাতে ময়লার ভাগাড় পরিণত না হয় সেজন্য নগরবাসীকে সচেতন হতে হবে। এসময় তিনি চলমান তাপপ্রবাহ ও জলবায়ুর পরিবর্তনে সৃষ্ট প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সবুজায়নের প্রতি গুরুত্বারোপ করে সকল সরকারি, বেসরকারি দপ্তর ও প্রতিষ্ঠানের গাছ লাগানোর আহ্বান জানান। 

মতবিনিময় সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হাবিবুল হাসান রুমি। পরে রংপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেওয়ান আসিফ পেলে জেলার আর্থসামাজিক অবস্থা ও চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন। সভায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ জেলার স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ-সহ আর্থসামাজিক উন্নয়নে তাঁদের দাবি, মতামত ও পরামর্শ উপস্থাপন করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাজেদ আলী বাবলু, সংগঠক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডা. মফিজুল ইসলাম মান্টু, সংগঠক ও সমাজকর্মী খন্দকার ফখরুল আনাম বেঞ্জু, রংপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মোনাব্বর হোসেন মনা, সাধারণ সম্পাদক মেরিনা লাভলী, পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবু সালেহ মো. তাজিমুল ইসলাম, তারাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন, রংপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন প্রমুখ।

বিভাগীয় কমিশনার রংপুর জেলার সার্বিক উন্নয়নে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।মতবিনিময় সভায় জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, কৃষক-সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। পরে একই স্থানে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বিষয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।