দিনাজপুরে ৫ বয়সী শিশুকে হত্যার দায়ে  এক ব্যাক্তির যাবজ্জীবন কারাদন্ড

আমাদের প্রতিদিন
2024-06-24 04:38:45

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ৫ বছর বয়সী শিশু মিরাজ কাজী হত্যা মামলায় মমতাজ উদ্দীন (৫৮) নামে এক ব্যাক্তির যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। আজ  মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ—২ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক শ্যাম সুন্দর রায় এই রায় ঘোষনা করেন।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত মমতাজ উদ্দীন দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার পশ্চিম খাজাপুর গ্রামের মৃত মীর উদ্দীনের ছেলে। হত্যার শিকার মিরাজ কাজী (৫) একই এলাকার মাহাবুর কাজী ও উম্মে কুলছুম দম্পত্তির  একমাত্র সন্তান।

আদালত ও মামলা সূত্রে জানাযায়, গত ২০১৮ সালের ৮ জুলাই দুপুরে শিশু মিরাজ কাজী পাশ^বর্তী মমতাজ উদ্দীনের বাড়ীতে বেড়াতে যায়। এরপর মাহাবুর কাজীর একমাত্র উত্তরাধিকারী শিশু মিরাজ কাজীকে পেটে ছুরি দিয়ে জখম ও শ^াসরোধ করে লাশ গুম করে রাখে মমতাজ উদ্দীন ও সহযোগিরা। অনেক খেঁাজাখুজির পর তাকে না পাওয়ায় পরের দিন ৯ জুলাই সকালে মমতাজ আলীর বাড়ীর পাশের একটি ডোবা থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনায় শিশু মিরাজ কাজীর পিতা মাহাবুর কাজী বাদী হয়ে মমতাজ উদ্দীনসহ ৪ জনকে আসামী করে ফুলবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং—১১, তারিখ—০৯.৭.২০১৮ ইং।

এই মামলায় স্বাক্ষ্য প্রমান শেষে আদালত গতকাল মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) মমতাজউদ্দীনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেন। হত্যার সাথে সংশ্লিষ্ঠতা প্রমানিত না হওয়ায় অন্য ৩ জন আসামীকে নির্দোষ খালাস দেয় আদালত।

দিনাজপুর কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক একেএম লিয়াকত আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে মামলার রায় ঘোষনার পর আদালতে উপস্থিত শিশু মিরাজ কাজীর মা মোছাঃ উম্মে কুলছুম বলেন, আমাদের উত্তরাধিকারী আমার একমাত্র সন্তান মিরাজ কাজীকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে মমতাজ উদ্দীন। যাবজ্জীবন সাজা না হয়ে আদালত তাকে মৃত্যুদন্ড দিলে তিনি শান্তি পেতেন। উচ্চ আদালতে তার মৃত্যুদন্ড দাবী করেন তিনি।