৬ শ্রাবণ, ১৪৩১ - ২১ জুলাই, ২০২৪ - 21 July, 2024
amader protidin

মিঠাপুকুরে কৃষকের ঘরে আগুন দিয়ে উচ্ছেদের চেষ্টা, উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

আমাদের প্রতিদিন
8 months ago
207


মিঠাপুকুর (রংপুর)প্রতিনিধি:

রংপুরের মিঠাপুকুরে এক কৃষকের বসতঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় দূর্বৃত্তরা। অসহায় ওই কৃষককে উচ্ছেদ করতেই তার ঘরে আগুন দিয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে মিমাংসার আশ্বাসে থাকা ওই দিনমজুরের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন প্রতিক্ষরা। মিঠাপুকুর থানার সদ্য বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রকৃত ঘটনা সঠিক তদন্ত না করেই মামলা রেকর্ড করে চলে গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। একে তো আগুনে পোড়া ঘর তার উপরে মিথ্যা মামলার বোঝা মাথায় নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অসহায় কৃষক। ভুক্তভোগী কৃষকের দাবি তিনি ঘর পোড়ার বিষয়ে থানায় অভিযোগ দিলেও আমলে নেয়নি পুলিশ। পুলিশের এমন ভুমিকা নিয়ে এলাকায় ব্যপক তোলপাড় চলছে।

ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার চেংমারী ইউনিয়নের রামেশ্বরপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের কৃষক আনারুল ইসলামের জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়ে র্দীঘদিন থেকে একই গ্রামের আঃ কাদের, সাইয়েদ, শরিফুল ও বায়জিদ মিয়ার বিরোধ চলে আসছিল। জমি নিয়ে প্রায় দেড় বছর ধরে চলে আসা বিরোধ নিয়ে স্থানীয়ভাবে কয়েকদফায় বৈঠকও হয়। হঠাৎ করে কাদের তার লোকজন নিয়ে কৃষক আনারুল ইসলামের বাড়িতে গিয়ে ৫ হাজার টাকার দাবি করে। কিন্তু অসহায় কৃষক টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ওই রাতে তার বসত ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় কাদের ও তার সহযোগীরা। কৃষকের আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে আগুন নেভালেও ততক্ষনে কৃষকের ঘরের খাটসহ আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

প্রতিবেশী সামসুল মিয়া বলেন, গভীর রাতে চিৎকার শুনে বের হয়ে দেখি ঘরে আগুন জ্বলছে। পাশেই আমারসহ অনেকের বাড়ি আছে আগুন য়েন ছড়িয়ে না পড়ে এ জন্য গ্রামবাসীরামিলে পানি দিয়ে আগুন নিভাই। এই বাড়িওয়ালা খুব গরীব তার সাথে এমন করা মোটেও ঠিক হয়নি। যতদুর জানি তার জমিটুকু হাতিয়ে নিতে এমন করা হচ্ছে। মামলার ভয়ে তাদের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলার সাহস পায় না।

প্রতিবেশী জাহেদা বেগম বলেন, কাদেরের স্ত্রী ছাবেরার সাথে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছে। কেউ তার উপর হাত তোলেনি। সে নিজেই ব্লেড দিয়ে নিজের গাল কেটে বাড়ি থেকে বের হয়ে মিঠাপুকুরে গেছে। তারা নিজেদের দোষ ঢাকতে মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে। একটা মহিলা মানুষ কিভাবে এমন কাজ করতে পারে।

মালেক মিয়া বলেন, কাদের ও তার লোকজন কোন কাগজপত্র ছাড়াই জমিজমা নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি করে। যখন নিজেরা পারছে না তখন বাড়ির মহিলা মানুষদের দিয়ে মিথ্যা মামলা করার হুমকি দিচ্ছে। তারা বাড়িতে আগুন দিয়ে উল্টো মামলার হুমকি দিচ্ছে। আমরা সঠিক তদন্ত ও আইনের সহযোগীতা কামনা করছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আঃ কাদের, সাইয়েদ, শরিফুল ও বায়জিদ মিয়ার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি। এমনকি তাদের বাড়িতে গিলেও তাদের পরিবারের সদস্যরা এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়