৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ - ১৮ মে, ২০২৪ - 18 May, 2024
amader protidin

সড়ক প্রশস্তকরণের নামে দিনাজপুরে কেটে ফেলা হচ্ছে শত শত গাছ

আমাদের প্রতিদিন
1 week ago
29


প্রকৃতির এই বিরূপ অবস্থায় নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলায় মানুষের ক্ষোভ

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

প্রকৃতির এই অসহনীয় অবস্থাকে সহনীয় পর্যায়ে আনতে যখন অধিকহহারে গাছ লাগানোর উপর গুরুত্বারোপ করা হচ্ছে, ঠিক তখনই দিনাজপুরে সড়ক প্রশস্তকরনের নামে নির্বিচারে কেটে ফেলা হচ্ছে শত শত গাছ। রাস্তায় ছায়াশীতল পরিবেশ সৃষ্টির পাশাপাশি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় ভুমিকা পালনকারী এসব বৃক্ষ নির্বিচারে নিধন করায় ক্ষোভ জানিয়েছে এলাকাবাসী। যদিও দিনাজপুর জেলা পরিষদের প্রতিনিধিরা বলছেন-সড়ক প্রশস্তকরণের জন্য সরকারী নিয়ম মেনেই কাটা হচ্ছে এসব গাছ।

দিনাজপুর থেকে বোচাগঞ্জ উপজেলার সেতাবগঞ্জ সড়ক। ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সড়কে ছায়াশীতল পরিবেশ সৃষ্টি করতে প্রায় অর্ধশত বছর আগ থেকেই সড়কের দু’ধারে রোপন করা হয় নানান জাতের হাজার হাজার গাছ। বিরাজমান বিরূপ আবহাওয়ার মধ্যেও গোটা সড়কে ছায়াশীতল পরিবেশ সৃষ্টি করেছে এই গাছগুলি। ছায়াশীতল পরিবেশের পাশাপাশি মনোরম পরিবেশ সৃষ্টিতে স্থানীয় সাংসদের উদ্যোগে প্রতিবছরই ৩০ কিলোমিটার সড়কের দু’পাশের গাছের গোড়াগুলিতে রং করে করা হয় শোভাবর্ধন। প্রকৃতি যতই উত্তপ্ত থাকুক—ছায়াশীতল পরিবেশে এই সড়ক দিয়ে চলাচল করলেই জুড়িয়ে যায় মন ও প্রাণ।

প্রকৃতির এই বিরূপ অবস্থার মধ্যেই এই সড়কের ৮টি স্থানে সড়ক প্রশস্তকরনের নামে কেটে ফেলা হচ্ছে শত শত গাছ। ছায়াশীতল পরিবেশ দানকারী এসব গাছ নির্বিচারে কেটে ফেলায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ওই এলাকার মানুষ। ওই সড়ক দিয়ে সবসময়ই চলাচল করে ভ্যানচালক ফনি চন্দ্র। তিনি জানান, প্রখর রোদে ক্লান্ত হয়ে গেলেই তিনি এসব গাছের নীচে ছায়াশীতল পরিবেশে বিশ্রাম নেন। গাছগুলো কেটে ফেলায় বিশ্রাম নেয়ার জায়গা আর থাকবে না।

ধনতলা এলাকার শামসুর রহমান জানান, রাস্তা প্রশস্তকরনের জন্য যেসব গাছ কাটার প্রয়োজন, সেগুলো গাছ কাটা হোক আমাদের আপত্তি নেই। কিন্তু নির্বিচারে সব গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। এটি মেনে নেয়া যায়না।

নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলার বিষয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করে বোচাগঞ্জ এলাকার সমাজকর্মী মাহবুব আলম বলেন, আমরা অত্যন্ত ব্যাথিত এবং আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, দিনাজপুর—সেতাবগঞ্জ সড়কে প্রায় ৫০ বছর আগে লাগানো শত শত গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে সড়ক সম্প্রসারণের নামে। তিনি বলেন, সড়ক প্রশস্তকরণ করা হোক—তাতে আমাদের কোন আপত্তি নেই। রাস্তা প্রশস্তকরণ করা হবে দু’দিকে ৩ ফুট করে। কিন্তু রাস্তা থেকে ১০ ফুট দুরের গাছগুলোও কেটে ফেলা হচ্ছে। মাহবুব আলম বলেন, চলমান তাপপ্রবাহ ও প্রকৃতির যে অবস্থা, এই অবস্থায় গাছগুলো নির্বিচারে কেটে ফেলে আরও একটি দুরবস্থার সৃষ্টি করছে দিনাজপুর জেলা পরিষদ। অবিলম্বে গাছ কাটা বন্ধ করে পরিবেশ রক্ষার দাবী জানান তিনি।

দিনাজপুর জেলা পরিষদ সুত্রে জানাযায়, দিনাজপুর শহর থেকে সেতাবগঞ্জ পর্যন্ত সড়কে ৮টি বাজার। এই ৮টি বাজারে রাস্তা সম্প্রসারনের জন্য সড়ক বিভাগের চাহিদা অনুযায়ী ৮টি লটের মাধ্যমে ২৯ লাখ ৫৬ হাজার ৯৩৮ টাকায় টেন্ডারের মাধ্যমে ৩৪০টি গাছ বিক্রি করা হয়েছে। 

দিনাজপুর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ শাহনেওয়াজ বলেন, গাছগুলো জেলা পরিষদের, আর সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সড়ক সম্প্রসারনের জন্য গাছগুলো সরিয়ে নেয়ার কথা বলায় জরিপ করেই কাটা হচ্ছে এসব গাছ। তবে সরকারী প্রক্রিয়া মেনেই টেন্ডারের মাধ্যমে গাছগুলো কাটা হচ্ছে বলে জানালেন তিনি।

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলী রইসউদ্দীন জানান, দিনাজপুর—সেতাবগঞ্জ সড়কে ৮টি বাজারে সড়ক সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। এই সড়কটির প্রশস্ত রয়েছে ১৮ ফুট। আর বাজারগুলোতে এই সড়কের প্রশস্ত করা হবে ২৪ ফুট। তাই ৮টি বাজারের সড়কের দু’পাশে ৩ ফুট করে মোট ৬ ফুট প্রশস্ত করা হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়