১০ ফাল্গুন, ১৪৩০ - ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ - 23 February, 2024
amader protidin

গঙ্গাচড়ায় পরিচ্ছন্নতা কর্মীর বেতন-ভাতার টাকা আত্মসাতের সত্যতা মিলেছে

আমাদের প্রতিদিন
2 months ago
201


গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি:

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় পরিচ্ছন্নতা কর্মীর বেতন-ভাতার সাড়ে তিন লাখ টাকা আত্মসাতের সত্যতা মিলেছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রাথমিক তদন্তে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার (২৯ নভেম্বর) বিষয়টি নিশ্চিত করেন রংপুর যুব উন্নয়ন দপ্তরের উপপরিচালক আব্দুল ফারুক। তিনি বলেন, অভিযুক্ত উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান এবং অফিস সহকারী দেলওয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে পরিচ্ছন্নতা কর্মী  মিনু মাইয়ের বেতন-ভাতা আত্মসাতের লিখিত অভিযোগ পেয়েছিলাম এবং এ নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে আমরা টাকা আত্মসাতের সত্যতা পেয়েছি। যেহেতু আমাদের এখান থেকে তাদের বিরুদ্ধে

ব্যাবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই। তাই তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে লিখিত  আবেদন জানানো হয়েছে। আশা করি দ্রুতই ফলাফল জানা যাবে। এদিকে এখন পর্যন্ত টাকা ফেরত না পেয়ে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী মিনু মাই বলেন, আমি ডিডি স্যারকে লিখিত অভিযোগ করার প্রায় দশ দিন পেরিয়ে গেলেও তিনি কোন সমাধান করতে পারেননি। খবর প্রকাশের পরে মাহমুদ স্যার ও দেলওয়ার স্যার আমাকে রংপুর শহরের বিভিন্ন জায়গায় টাকা নেওয়ার জন্য ডাকেন। কিন্তু টাকা না দিয়ে উল্টো সাদা কাগজে সই করতে বলেন। আমি সই করিনি।  এ বিষয়ে উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসে গেলে অভিযুক্ত দুইজনের কাউকে পাওয়া যায়নি। পরে একাধিকবার ফোন করেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, গত রোববার এ নিয়ে আমাদের প্রতিদিন  পত্রিকায় পরিচ্ছন্নতা কর্মীর বেতন ভাতা কমকর্তার আত্মসাৎ' শিরোনামে  সংবাদ প্রকাশ হয়। এরপর বিষয়টি নিয়ে শুরু হয় আলোচনা সমালোচনা।

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়