১০ ফাল্গুন, ১৪৩০ - ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ - 23 February, 2024
amader protidin

কুড়িগ্রাম জেলার ৩ ও ৪ নং আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী চ্যালেঞ্জের মুখে

আমাদের প্রতিদিন
1 month ago
129


আহসান হাবীব নীলু, কুড়িগ্রাম:  

কুড়িগ্রাম -২(উলিপুর) আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা নৌকা মার্কা নিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী ডাঃ মোঃ আক্কাছ আলী সরকারের ট্রাক মার্কার কাছে। এ আসনে নৌকার ভোট কাটছের লাঙ্গল মার্কা নিয়ে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুস সোবহান। তার অবস্থান তৃতীয় হলেও হলার কাটা হয়ে দাড়িয়েছে নৌকার। অভিযোগ রয়েছে নৌকা মার্কা থাকবারপরও আওয়ামীলীগের বেশ কিছু নেতা কর্মী স্বতন্ত্র প্রার্থীর ট্রাক ও জাতীয় পার্টির লাঙ্গলের পক্ষে মাঠে নেমেছেন। ফলে ত্রিমুখী লড়াইয়ে নৌকার নাজেহাল অবস্থা।

এ আসনে একটি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়নে মোট ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১৩৯টি এর মধ্যে অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র একটি। ভোট কক্ষের সংখ্যা ৮০৬টি। মোট ভোটার সংখ্যা ৩লাখ ৪৭ হাজার ২৬১জন। এর মধ্যে নারী ভোটার সংখ্যা এক লাখ ৭৫ হাজার ৬৯১ এবং পুরুষ ভোটার এক লাখ ৭১ হাজার ৫৭০জন। অর্থাৎ পুরুষ ভোটারের চেয়ে এ আসনে নারী ভোটার বেশী চার হাজার ১২১জন।

এ আসনের মোট প্রার্থী ৭জন। অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন তৃণমুল বিএনপি’র আব্দুল বাতেন সোনালী আশঁ মার্কা, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টি’র মোসাদ্দেকুল আলম আম মার্কা, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন এর সাফিউর রহমান নোঙ্গর মার্কা এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের হাবিবুর রহমান গামছা মার্কা।

কুড়িগ্রাম-৪ (রৌমারী, রাজিবপুর ও চিলমারী) আসনে আওয়ামীলীগের নরুণ নেতা অ্যাডভোকেট বিপ্লব হাসান পলাশের মুল প্রতিদ্বদ্বী জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতিকের এ কে এম সাইফুর রহমান। নৌকা বিজয়ের প্রধান বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে আওয়ামীলীগের ৪জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এ আসনের বর্তমান সাংসদ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন নৌকা প্রার্থীর পক্ষে মাঠে না থাকলেও তার সমর্থক ও কর্মী বাহিনী কাজ করছে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বঙ্গবাসী’র ঈগল মার্কার পক্ষে। আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র অপর তিন প্রার্থী হলেন-এ্যাডভোকেট মাছুম ইকবাল কাঁচি মার্কা, শহিদুল ইসলাম শালু ট্রুাক মার্কা ও ডাঃ ফারুকুল ইসলাম ঢেঁকি মার্কা।

এ আসনে মোট প্রার্থী ১১জন। এর মধ্যে জাতীয় পার্টি-জেপি এর সাবেক এমপি রুহুল আমিন বাই সাইকেল মার্কা অসুস্থ্যতার কারণ দেখিয়ে ইতি মধ্যে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ানোর ঘোষনা দিয়েছেন। এছাড়া অন্য প্রার্থীরা হলেন কৃষক শ্রমিক জনতালীগের গামছা মার্কার মোহাম্মদ আবু শামিম হাবীব, তুণমুল বিএনপি’র সোনালী আশঁ মার্কার  আতিকুর রহমান খাঁন ,বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির ডাব মার্কার আব্দুল হামিদ এবং জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র কলার ছড়ি মার্কার শাহ্ মোঃ নূর-ই-শাহী।

এ আসনে তিনটি উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে মোট ভোট কেন্দ্র ১৩০টি এবং ভোট কক্ষ ৭৯৮টি। মোট ভোটার সংখ্যা ৩লাখ ৩৮ হাজার ৪০৬জন এর মধ্যে পুরুষ ভোটর সংখ্যা এক লাখ ৬৮ হাজার ৭০৮জন, নারী ভোটার এক লাখ ৬৯ হাজার ৬৮৯জন এবং হিজড়া ভোটার ৯জন। পুরুষের চেয়ে নারী ভোটর বেশী ৯৮১জন।

  

সর্বশেষ

জনপ্রিয়