১ বৈশাখ, ১৪৩১ - ১৫ এপ্রিল, ২০২৪ - 15 April, 2024
amader protidin

১৮ মাচ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আমাদের প্রতিদিন
1 year ago
218


পার্বতীপুর বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেন্ডশীপ পাইপ লাইন স্থাপনের কাজ সম্পন

মুসলিমুর রহমান, পার্বতীপুর (দিনাজপুর):  

ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ পাইপ লাইনের মাধ্যমে শিলিগুড়ি নুমালীগড় থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলহেড ডিপোতে তেল সরবরাহ শুরু হচ্ছে ১৮ মার্চ থেকে। এ লক্ষ্যে যাবতীয় কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। অনলাইন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ পয়েন্টের পার্বতীপুরে উপস্থিত থাকবেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী সচিব ও পেট্লিয়াম কর্পোরেশনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন প্রকল্প পরিচালক (পিডি) টিপু সুলতান। উদ্বোধনের পর পরই পার্বতীপুর রিসিপ্ট টার্মিনালে নিয়মিত চলবে তেল সরবরাহ কার্যক্রম। এতে বাংলাদেশের উত্তরের জেলা গুলোতে ডিজেল দ্রæত সরবরাহ করা যাবে। প্রকল্পটি ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের বন্ধুত্বের আরেকটি নতুন মাইলফলক বলে জানানো হয়েছে। এটি বাস্তবায়নের জন্য দু দেশের মধ্যে ২০১৮ সালের ৯ এপ্রিলে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। একই বছর দু দেশের প্রধানমন্ত্রী ১৮ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। প্রকল্পটিতে ১৩১.৫ কিলোমিটার পাইপলাইনের মধ্যে ভারতের অংশে ৫ কিলোমিটার ও বাংলাদেশ অংশের ১২৬.৫ কিলোমিটার পাইপ লাইন স্থাপন করা হয়েছে। তার মধ্যে পঞ্চগড় জেলায় ৮২.১৭ কিলোমিটার, নীলফামারী ৯ কিলোমিটার ও দিনাজপুর জেলায় ৩৫.৫ কিলোমিটার হয়ে পার্বতীপুর রেল হেড ডিপোতে সংযুক্ত হয়েছে। ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বাংলাদেশ অংশের প্রকল্পিত ব্যয়ের পরিমান বিপিসি‘র নিজস্ব অর্থায়নে ৩০৬২৩.৩২ লক্ষ টাকা। এ প্রকল্পে পাইপলাইন স্থাপনের প্রথম ধাপে পঞ্চগড়, নীলফামারী ও দিনাজপুর জেলার জমির অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল করা হয়। জানানো হয়েছে, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ফলে পার্বতীপুর রেল হেড ডিপোতে জ্বালানী তেলের মজুদ বৃদ্ধি পাবে এবং এলাকায় জ্বালানী তেলের সরবরাহ ব্যবস্থা সুদৃঢ় হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে পার্বতীপুর রেলহেড ডিপোতে জ্বালানী তেলের মজুদ ১৫০০০ মেট্রিক টন থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৪৩৮০০ মেট্রিক টনে উন্নীত হবে এবং উত্তরাঞ্চলের জ্বালানী তেলের সরবরাহ বেড়ে যাবে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে ভারত সরকারের পক্ষে নুমালীগড় রিফাইনারী লিমিটেড (এনআরএল) ও বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি)। ভারতে নুমালীগড় রিফাইনারী লিমিটেড (এনআরএল) শিলিগুড়ীস্থ মার্কেটিং টার্মিনাল হতে পার্বতীপুর ডিপোতে ডিজেল তেল সরবরাহ শুরু হবে উদ্বোধনের পরক্ষণ থেকেই। আধুনিক পদ্ধতির মাধ্যমে জ্বালানী তেলের পরিবহন লস ও পরিবেশ দুষন হৃাস করে পরিবহন পরিচালন ও সরবরাহ ব্যবস্থা আরো আধুনিক সহজতর নির্বিঘ্নে ও সুদৃঢ় হবে। এতে প্রতিকুল পরিবেশেও দেশের উত্তরাঞ্চলে জ্বালানী তেলের সরবরাহে দূর্ভাবনা কেটে যাবে। পার্বতীপুর রেল হেড ডিপোতে খুলনা দৌলতপুর ডিপো থেকে রেলওয়ে ওয়াগন যোগে সপ্তাহে দু থেকে তিনবার চার থেকে পাঁচ লক্ষ লিটার তেল পার্বতীপুর রেল হেড ডিপোতে আনা হতো।

 

  

সর্বশেষ

জনপ্রিয়