৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ - ২১ মে, ২০২৪ - 21 May, 2024
amader protidin

বাস্তবায়ন হচ্ছে না তিস্তা মহাপরিকল্পনা

আমাদের প্রতিদিন
3 weeks ago
31


তিস্তা মহাপরিকল্পনা আপাতত বাস্তবায়ন না হওয়ার অন্যতম কারণ চীনের শক্ত শর্ত এবং নিজস্ব বিনিয়োগের সক্ষমতার অভাব

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আপাতত বাস্তবায়ন হচ্ছে না তিস্তা মহাপরিকল্পনা। যার অন্যতম কারণ চীনের শক্ত শর্ত এবং নিজস্ব বিনিয়োগের সক্ষমতার অভাব। অথচ তিস্তার দুই তীর রক্ষায় বিপুল অর্থ ব্যয়ে আবারও একটি নতুন প্রকল্প হাতে নিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। তবে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের উদ্যোগ না নিয়ে জোড়াতালি দেয়া নতুন যেকোনো প্রকল্পই হবে সরকারের অর্থের অপচয়। পাউবো এরই পূর্বে যতো প্রকল্প হাতে নিয়েছে তা পানিতেই মারা গেছে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ভারতের সিকিম থেকে নেমে আসা তিস্তা এখন পানির অভাবে পরিণত হয়েছে শাখা নদীতে। অথচ এ নদীর ওপর ভর করেই জীবনযাপনের রসদ যোগান উত্তরের কোটি কোটি মানুষ। পরিচর্যার অভাবে নানা দিকে গতি পরিবর্তন করে এখন অনেকটা দিশেহারা উত্তরের এ জীবন রেখা। বর্ষায় প্লাবন আর ভাঙনের তাণ্ডবে নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে একের পর এক গ্রাম। আর শুষ্ক মৌসুমে পানির অভাবে ধু ধু বালুময় প্রান্তর।

অথচ ভারতের সঙ্গে তিস্তা চুক্তিতে বলা ছিলো, নদীর ৩৬ শতাংশ পানি পাবে বাংলাদেশ। আর ভারতের হিস্যা ৩৯ শতাংশ। বাকি ২৫ শতাংশ পানি সংরক্ষিত থাকবে। কিন্তু বর্ষা বাদে বছরের বাকি সময় ১০ শতাংশের বেশি পানি পাওয়া যায় না।

এ বিষয়ে রংপুর জেলা বাসদ সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস জানান, ‘জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে যে পানি নীতি কনভেনশন বা নীতিমালা আছে আমরা যদি একটি অভিযোগ দায়ের করি, তাহলে নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আমরা পাবো।’

তিস্তা নির্ভর কোটি মানুষের জীবন জীবিকা যখন হুমকিতে, তখন আশার আলো জাগানিয়া হয়ে আসে তিস্তা মহাপরিকল্পনা। তবে প্রতিবছর তিস্তার যে বিপুল পরিমাণ ক্ষতি, সেটি মোকাবিলায় দীর্ঘ সময় ধরে দাবি ছিল তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের। এর প্রতিশ্রুতি মিলেছে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে।

এ বিষয়ে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উত্তরাঞ্চল প্রধান প্রকৌশলী মো. মাহবুবর রহমান বলেন, আপাতত টাকার অভাবে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়।

তবে নদীর তীর রক্ষায় আবার নতুন একটি প্রকল্পে মোটা টাকা খরচ নিয়ে পাউবোর ওই প্রকৌশলী জানান, ‘তিস্তার তীব্র ভাঙন প্রতিরোধে আরেকটি স্টাডি করছি। সেখানে আমরা তীর প্রতিরক্ষায় কাজ করে জনসম্পদ ও ঘরবাড়ি রক্ষায় কাজ করবো।’

রংপুর তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম হক্কানী বলেন, তিস্তা সংস্কারের নামে পাউবো ইতোপূর্বে যতো প্রকল্প হাতে নিয়েছে সেগুলো পানিতেই মারা গেছে। তাদের কোনো কাজই উপকারে আসেনি। তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের উদ্যোগ না নিয়ে অন্য যে কোনো প্রকল্পই হবে জোড়াতালি, যা কোনো কাজেই আসবে না।

তিনি আরও বলেন, মূল বিষয়কে বাদ দিয়ে তিস্তা মহাপরিকল্পনা যদি আলাদাভাবে করা হয় তাহলে আসলটাই ব্যাহত হবে; এতে শুধু টাকার অপচয় হবে।

বিশাল জনগোষ্ঠীর টেকসই সমাধানের পাশাপাশি উত্তরাঞ্চলকে জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত থেকে রক্ষায় তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিকল্প নেই বলে জানান গবেষকরা।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়