৯ আষাঢ়, ১৪৩১ - ২৩ জুন, ২০২৪ - 23 June, 2024
amader protidin

ডোমারে হোটেলের পাওনা টাকা চাইতে গেলে হোটেল মালিককে মারধর,থানায় অভিযোগ

আমাদের প্রতিদিন
1 year ago
204


ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ২নং কেতকীবাড়ী ইউনিয়নের বোর্ড বাজার এলাকায় হোটেলের পাওনা টাকা চাইতে গেলে সজীব হোটেলের প্রোপাইটর মনোয়ার হোসেনকে মারধর করেছে কেতকীবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লাবু হাসান ও তার সহযোগী আব্দুল হাকিম এবং লিজু ইসলাম। এ ঘটনায় মনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে লাবুসহ আরও ২ জনের নাম উল্লেখ করে ডোমার থানার একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, কেতকীবাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিণ কেতকীবাড়ী খালপাড়া এলাকার আব্দুর রউফ এর পুত্র মনোয়ার হোসেন। তিনি পেশায় একজন হোটেল ব্যবসায়ী তার হোটেলে বিভিন্ন সময় লাবু হাসান তার সহযোগীদের নিয়ে চা নাস্তা খেয়ে এবং হোটেলের অন্যান্ন মালামাল বাঁকিতে ক্রয় করে নিয়ে যায়, এতে লাবু হাসানের কাছে পাওনা টাকার পরিমান দ্বাড়ায় সাড়ে সাত হাজার টাকা।সেই পাওনা টাকা লাবুর কাছে চাইতে গেলে সে বিভিন্ন ভাবে সময় কালক্ষেপন করে আজ দেব কাল দেব বলে টালবাহানা করিতে থাকেন। ঘটনার দিন ০৩-০৫-২৩ইং তারিখ সকাল ১০টা ০৫ মিনিটে মনোয়ারের দোকানের সামনে লাবুসহ তার সহযোগীরা এলে মনোয়ার লাবুর কাছে তার দোকানের পাওনাকৃত সাড়ে সাত হাজার টাকা চাইতে গেলে লাবু মনোয়ারের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা সহ বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করিয়া সেই স্থান ত্যাগ করে। সেই ঘটনার জের ধরে একইদিন সন্ধ্যা ৬ ঘটিকার সময় বোর্ড বাজারস্ত জনৈক আব্দুল মালেকের পান সুপারির দোকানের সামনে মনোয়ারকে দেখতে পেয়ে পূর্ণরায় গালিগালাজ করিতে থাকে। এসময় মনোয়ার লাবুর গালিগালাজের প্রতিবাদ করিলে লাবুসহ তার সহযোগী আব্দুল হাকিম এবং লিজু ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে মনোয়ার কে এলোপাতাড়ি ভাবে কিল ঘুষি ও লাথি মারিয়া ছেলা ফুলা ও কালশিরা পড়া জখম করে। এক পর্যায়ে লাবু মনোয়ারের পরিহিত গেঞ্জির পকেটে থাকা ব্যবসার ২৮ হাজার টাকা জোরপূর্বক কারিয়া নেয়। এসময় মনোয়ারের আত্ন চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করিয়ে দেয়, বর্তমানে মনোয়ার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনাস্থল থেকে যাওয়ার সময় লাবু হাসান ও তার সহযোগীরা বলে পূর্ণরায় পাওনা টাকা চাইলে মারপিটসহ খুন জখম করিবে বলিয়া নানা রকম ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হুসেন আলী এবং সাবু ইসলাম বলেন, মনোয়ার লাবুর কাছে সাড়ে সাত হাজার টাকা পায়, সেই টাকা চাইতে গেলে লাবু মনোয়ারকে মারধর শুরু করে। মনোয়ার বর্তমানে বোড়াগাড়ী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অপর প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুল মজিদ জানায়, আমার দোকানে মনোয়ার ভাই আসছিল, কিছুক্ষণ পর দেখি মনোয়ার ভাইকে মারধর শুরু করেছে লাবু। এবং লাবুর সাথে আরও তিনজন ছিল।

এবিষয়ে মুঠোফোনে কেতকীবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লাবু হাসানের সাথে কথা হলে তিনি মনোয়ারকে মারধরের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,মনোয়ার আমার দোকানে হামলা করে ২ লক্ষ টাকা নিয়ে পালিয়ে যেতে ধরেছে, তাই আমি তাকে পিট্টি ধরে ১ লক্ষ টাকা পেয়েছি। মনোয়ারের দোকানের পাওনা সাড়ে সাত হাজার টাকার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।

এবিষয়ে ডোমার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদ উন-নবী বলেন, অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়