৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ - ১৫ জুন, ২০২৪ - 15 June, 2024
amader protidin

কাজের মেয়াদ শেষ হলেও নির্মাণ কাজ এখনো বাকি; ভোগান্তিতে জনসাধারণ

আমাদের প্রতিদিন
1 year ago
205


খানসামা (দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সড়ক জাহাঙ্গীরপুর হতে হেলিপ্যাড ইউজেড সদর দপ্তর রাস্তায় ভুল্লির নদীর উপর ৩ কোটি  ২৩ লক্ষ ৮৮ হাজার ৩২৬ টাকা ব্যয়ে ৬০ মিটার আর সি সি গার্ডার ব্রীজের নির্মাণ কাজের মেয়াদ শেষ হয়েছে। শেষ হয়নি সড়কসহ ব্রিজ নির্মাণাধীণ কাজ। এতেই বিভিন্ন এলাকার জনগণসহ শিক্ষার্থীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।

এক হতে দুই বছরের কার্যাদেশ নিয়ে ঠিকাদারি  প্রতিষ্ঠান ব্রীজ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়ে দুই বছর পার হলেও ওই সেতুর নির্মাণ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বিএম (জিভি)। এখনও ব্রীজের কাজ বাকি প্রায় ৪০ ভাগ। জরাজীর্ন্ন বিকল্প সরু পথ দিয়ে মোটরসাইকেল, সাইকেল, অটো, রিক্সা, ভ্যানে চলাচল করছে।

এ ব্যাপারে সড়ক দিয়ে আসা পথচারী রেজাউল করিম বলেন, ‘আমার বাসায় যেতে গেলে এই রাস্তা ছাড়া উপায় নেই। এই তীব্র গরমে রাস্তার ধুলো মটির কারণে চলাচলের জন্য কঠিন। আর ব্রিজ এর কথা কি বলব? সামনের বর্ষার আগে ব্রিজ না হলে আমাদের কঠিন সমস্যা সমূখীন হতে হবে।’হাঁটু পর্যন্ত কাপড় তুলতে হবে।

মুশফিকুর বলেন, ‘ভাইরে কি আর কোম? গরমের দিনে এক হাঁটু ধুলা আর পানি হলে এক হাঁটু কাঁদো। এইটা রাস্তা বেঁধায় আর ঠিক হবে না।

জমি রেজিস্ট্রি করতে আসা রাশেদ বলেন, জমি রেজিস্ট্রি অফিসটি উপজেলার বাইরে কিন্তু তাতে কোন সমস্যা নেই সমস্যা একটাই। এই রাস্তায় কি মানুষ চলাচল করতে পারে। আমার তো মনে হয় না।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আনারুল ইসলাম বলেন, ‘আমি ইতিমধ্যে উপজেলা প্রকৌশলী কর্মকর্তাকে বলেছি। যেন বর্ষার আগেই ব্রিজের কাজ হয়ে যায় কেননা আমরা খুব বিপদে আছি জনগন নিয়ে।’এছাড়াও সড়ক নির্মাণ কাজের মেয়াদ শেষ হয়েছে উপজেলার জয়গঞ্জ সড়ক, গোবিন্দপুর সড়ক, টংগুয়া-পাকেরহাট সড়ক, বিজয় বাজার-টংগুয়া সড়ক, আঙ্গারপাড়া সড়ক ইত্যাদি। নির্মিত সড়কগুলোতে খড়া মৌসুমে পানি ব্যবহার না করায় ধুলোপ ধুলো দিয়ে পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে ইতিমধ্যে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নের ৫৪ টি গ্রামের প্রায় দুই লক্ষ মানুষ।স্থানীয়দের অভিযোগ, জনপ্রতিনিধিদের তদারকি না করায় উপজেলা প্রকৌশল কার্যালয়ের উদাসীনতা ও ঠিকাদারের গরিমশির ঐসব নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি। নির্মান কাজ দ্রুত শেষ করার দাবি জানান এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী কর্মকর্তা শাহ্ মো. ওবায়দুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ‘খুব দ্রুতভাবে ব্রিজ-কালভার্ট ও সড়কের কাজগুলো সমাপ্ত করার জন্য ঠিকাদারদের তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

 

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়