১৫ ফাল্গুন, ১৪৩০ - ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ - 27 February, 2024
amader protidin

প্রতিমা তৈরীতে অনন্য প্রতিভা বীরগঞ্জের স্কুল ছাত্র নিলয় গুহের

আমাদের প্রতিদিন
11 months ago
222


বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

কোন প্রশিক্ষণ ছাড়াই দিনাজপুরের বীরগঞ্জে প্রতিমা তৈরীতেস্কুল ছাত্র নিলয় গুহের শৈল্পিক নৈপুন্য দক্ষতা এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে কোন প্রশিক্ষণ না থাকলেও অল্প বয়সে তার কর্মশৈলী ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। লেখাপড়ার পাশাপাশি প্রতিমা তৈরীর নিপুন কারিগর হিসেবে তার প্রতিভা এলাকাবাসীর কাছে আশার আলো ছড়িয়েছে।

নিলয় গুহ বীরগঞ্জ পৌর শহরের নতুনপাড়া গ্রামের রুলিং গুহের ছেলে। মা পুঁজা রাণী গুহ একজন আদর্শ গৃহিণী। স্থানীয় কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র সে।

জানা যায়, দুর্গাপূজা ও অন্যান্য  পূজার সময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের বাড়ীর পাশে মন্দিরে প্রতিমা তৈরি করতে আসে কারিগররা। এ সময় সেখানে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখতো সে। এরপর বাড়ীতে একাই চেষ্টা করে প্রতিমা তৈরীতে। তার এই প্রতিভা মন্দির কমিটির নজরে আসে। তার প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে কমিটির লোকজন মন্দিরে বাসন্তি পুজার প্রতিমা তৈরী কাজ দেয় তাকে। এরপর থেকে এবার সে নিজ হাতে মন্দিরে প্রতিমা তৈরি করছে। নিলয় গুহের একক প্রচষ্টায় পৌর শহরের নতুনপাড়া সর্বজনীন মন্দিরে চলছে প্রতিমা তৈরীর কর্মযজ্ঞ।

নিলয় গুহ বলেন, ছোট বেলা থেকে বাড়ীর পাশের মন্দিরে প্রতিমা তৈরীর কারিগর আসলে ছুটে যেতাম মন্দিরে। খুব মনযোগ দিয়ে দেখতাম তাদের প্রতিমা তৈরী কৌশল। এরপর থেকে প্রতিমা তৈরী শখ চেপে আমার। শখকে আমি টার্গেটে পরিণত করেছি। সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা ও সবার আশীর্বাদে আমি সফল হয়েছি। আমার করা প্রতিমায় এ বছর প্রথম পূজা হচ্ছে এটা অনেক বেশি আনন্দের।’

নিলয় গুহের মা পুঁজা রানী গুহ জানান, স্বামী মানসিক ভাবে অসুস্থ্য। তাই স্ত্রী হিসেবে সংসারে হাল ধরতে হয়েছে তাঁকে। সংসারে অভাব থাকলেও ২০২০ সালে স্থানীয় কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি করা হয় নিলয় গুহকে। তবে অর্থাভাবে ছেলের পড়াশুনার খরচ চালাতে জোগাতে হিমশিম খেতে হয় তাদের পরিবারকে। ছোট বেলা থেকে তাদের একমাত্র সন্তান নিয়ল গুহ ছিল বেশ মেধাবী ও প্রতিভাবান। কোন কিছু দেখেই সে আয়ত্ব করে নিতে পারতো। এবার ছেলে নিলয় গুহের তৈরী করা প্রতিমায় নতুনপাড়া মন্দিরে বাসন্তী পূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জেনে বেশ খুশি তিনি।

নতুনপাড়া মন্দির কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শিশির শীল নেপাল বলেন, ‘অনেক টাকা খরচ করে বহুদুর হতে প্রতিমা তৈরির কারিগর নিয়ে আসতে হতো। এতে অনেক টাকা খরচ হয়ে যায়। কিন্তু এবার নিলয় গুহকে প্রতিমা তৈরির দায়িত্ব দেওয়ায় অনেক টাকা সাশ্রয় হবে। আগামী দিনে অন্য জায়গা হতে আর শিল্পী নিয়ে আসতে হবে না।

স্থানীয় ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বনমালী রায় বলেন, 'নিলয় গুহ একাই মন্দিরের প্রতিমা তৈরী প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। তার এই সাহসী আত্মবিশ্বাস আমাদের অবাক করেছে। তার প্রতিভা সত্যিই প্রশংসনীয় এবং আমরা তার সাফল্য কামনা করছি।’ 

এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ পৌর সভার মেয়র মোশারফ হোসেন বাবুল বলেন, ' 'কোন ডাইস বা ফর্মা ছাড়াই ছেলেটি বিভিন্ন দেব-দেবীর মুখঅবয়ব তৈরি করেছে। আমি মনে করি এটি অবশ্যই সৃষ্টিকর্তা কর্তৃক প্রদন্ত মেধা। তার এই মেধা আগামী দিনে এলাকার মুখ উজ্জ্বল করবে। পাশাপাশি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে সে অনেক বড় শিল্পী হতে পারবে।’ আমার পক্ষ হতে যে কোন প্রয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

 

 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়